প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ৩৭৭ টি প্রশ্ন-উত্তরের ফাইনাল সাজেশন্স-২০১৮

✿➢১) সামরিক শাসন জারি করা হয় – ১৯৫৮ সালের ৭ অক্টোবর
✿➢২) আইয়ুব খান ক্ষমতা দখল করেন – ১৯৫৮ সালের ২৭ অক্টোবর
✿➢৩) মৌলিক গণতন্ত্র চালু করেন – আইয়ুব খান
✿➢৪) আইয়ুব বিরোধী আন্দোলন শুরু হয় – ১৯৬১ সালে
✿➢৫) ছাত্র সমাজ ১৫ দফা কর্মসূচি ঘোষণা করে – ১৯৬২ সালে
✿➢৬) ভারত পাকিস্তান যুদ্ধ হয় – ১৯৬৫ সালের ৬ সেপ্টেম্বর
✿➢৭) ভারত পাকিস্তান যুদ্ধ চলে – ১৭ দিন
✿➢৮) বাঙ্গালি জাতির মুক্তির সনদ – ৬ দফা দাবি
✿➢৯) ৬ দফা দাবি উথাপন করেন – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান
✿➢১০) ৬ দফা দাবি উথাপন করা হয় – ১৯৬৬ সালের ৫-৬ ফেব্রুয়ারি
✿➢১১) আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার আসামি ছিল – ৩৫ জন
✿➢১২) আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার প্রধান আসামি করা হয় – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে
✿➢১৩) আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার শুনানি হয় – ১৯৬৮ সালের ১৯ জুন
✿➢১৪) ঊনসত্তরের গণ অব্যুথান হয় – ১৯৬৯ সালে
✿➢১৫) গণ অভ্যুথানে শহীদ হন – আসাদ, ড. শামসুজ্জোহা
✿➢১৬) আগরতাল ষড়যন্ত্র মামলা থেকে শেখ মুজিবুর রহমানকে মুক্তি দেয়া হয় – ১৯৬৯ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি
✿➢১৭) শেখ মুজিবুর রহমানকে ” বঙ্গবন্ধু ” উপাধি দেয়া হয় – ১৯৬৯ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি
✿➢১৮) আইয়ুব খান পদত্যাগ করেন – ১৯৬৯ সালের ২৫ মার্চ
✿➢১৯) কেন্দ্রীয় আইন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৭০ সালের ৭ ডিসেম্বর
✿➢২০) নির্বাচনে মোট ভোটার ছিল – ৫ কোটি ৬৪ লাখ
✿➢২১) কেন্দ্রীয় আইন পরিষদের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আসন লাভ করে – ১৬৭ টি ( ১৬৯ এর ধ্যে)
✿➢২২) প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৭০ সালের ১৭ ডিসেম্বর
✿➢২৩) প্রাদেশিক পরিষদ নির্বাচনে আ.লীগ আসন পায় – ২৮৮ টি ( ৩০০ এর মধ্যে)
✿➢২৪) পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের অধিবেশন স্থগিত করেন – আগা খান
✿➢২৫) অধিবেশন স্থগিত করা হয় – ১৯৭১ সালের ১ মার্চ
✿➢২৬) অসহযোগ আন্দোলনের ডাক দেন – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান
✿➢২৭) অসহযোগ আন্দোলনের ডাক দেয়া হয় – ১৯৭১ সালের ২ মার্চ
✿➢২৮) বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের সময় পূর্ব পাকিস্তানে চলছিল – অসহযোগ আন্দোলন
✿➢২৯) জাতীয় পরিষদের অধিবেশন আহবান করা হয় – ১৯৭১ সালের ৩ মার্চ
✿➢৩০) পূর্ববাংলার স্বাধীনতার ঘোষণা দেয়া হয় – ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণে
✿➢৩১) অপারেশন সার্চ লাইট চালানোর নীলনক্সা করা হয় – ১৯৭১ সালের ১৭ মার্চ
✿➢৩২) নীলনক্সা করেন – টিক্কা খান, রাও ফরমান আলী
✿➢৩৩) অপারেশন সার্চ লাইট হলো – ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চের বর্বরহত্যাকান্ড
✿➢৩৪) বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ঘোষণা দেন – ২৬ মার্চ প্রথম প্রহরে ওয়্যারলেসযোগে
✿➢৩৫) বঙ্গবন্ধুকে শেখ মুজিবুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয় – ২৬ মার্চ প্রথম প্রহরে আনুমানিক রাত ১.৩০ মিনিটে
✿➢৩৬) শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দেন- ২৬ মার্চ প্রথম প্রহরে ২৫ মার্চ রাত ১২ টার পর
✿➢৩৭) বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষণাটি ছিল – ইংরেজিতে।
✿➢৩৮) বাংলাদেশের অধিকাংশ নদীর উৎপত্তিস্থল – ভারতে
✿➢৩৯) বাংলাদেশে নদী পথের দৈর্ঘ্য – ৯৮৩৩ কিমি
✿➢৪০) সারাবছর নৌ চলাচলের উপযোগী নৌপথ – ৩,৮৬৫ কি.মি
✿➢৪১) অভ্যন্তরীন নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ তৈরি হয়েছে – ১৯৫৮ সালে
✿➢৪২) কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকর প্রথম বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয় – পাকিস্তান আমলে
✿➢৪৩) অভ্যন্তরীন নৌ পথে দেশের মোট বাণিজ্যিক মালামালের – ৭৫% আনা নেয়া হয়
✿➢৪৪) বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠিত হয় – ১৯৭২ সালে
✿➢৪৫) বাংলাদেশে চা চাষ হচ্ছে – উওর ও পূর্বাঞ্চলের পাহাড়ে
✿➢৪৬) সারা বছর বৃষ্টিপাত হয় – উষ্ণ ও আদ্র জরবায়ু অঞ্চলে
✿➢৪৭) বাংলাদেশে চির হরিৎ বনাঞ্চল – পার্বত্য চট্টগ্রামের বনাঞ্চল
✿➢৪৮) বাংলাদেশে খনিজ সম্পদ সমৃদ্ধ জেলা সমূহ – পূবাঞ্চলীয় পাহাড়ি জেলা সমূহ
✿➢৪৯) বাংলাদেশের লবণাক্তের পরিমাণ বেশি – দক্ষিণাঞ্চলের বেশ কিছু এলাকা
✿➢৫০) বাংলাদেশের ক্রান্তীয় চিরহরিৎ ও পত্রপতনশীল বনভূমি- দক্ষিণ পূর্ব ও উত্তর পুর্ব অংশের পাহাড়ী অঞ্চল
✿➢৫১) চিরহরিৎ বনকে বলা হয় – চির সবুজ বন
✿➢৫২) চিরহরিৎ বনভূমির পরিমাণ – ১৪ হাজার বর্গ কি.মি
✿➢৫৩) প্রচুচুর বাঁশ ও বেত জন্মে – সিলেটে
✿➢৫৪) রাবার চাষ হয় – পার্বত্য চট্টগ্রাম ও সিলেটে
✿➢৫৫) ক্রান্তীয় পাতাঝরা অরণ্য – ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, গাজীপুর, দিনাজপুর ও রংপুর জেলায়
✿➢৫৬) শীতকালে গাছের পাতা সম্পূর্ণ ঝরে যায় – ক্রান্তীয় পাতাঝরা বনভূমির
✿➢৫৭) ক্রান্তীয় পাতাঝরা বনভূমির প্রধান বৃক্ষ – শাল
✿➢৫৮) মধুপুর ভাওয়াল বনভূমি – ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল ও গাজীপুরে
✿➢৫৯) দিনাজপুরে এটি – বরেন্দ্র নামে পরিচিত
✿➢৬০) স্রোতজ বনভূমি- দক্ষিণ পশ্চিমাংশের নোয়াখালী ও চট্টগ্রাম জেলার উপকূলীয় বন
✿➢৬১) স্রোতজ বনভূমি প্রধানত জন্মে – সুন্দরবনে
✿➢৬২) বাংলাদেশে স্রোতজ বা গরান বনভূমির পরিমাণ – ৪,১৯২ বর্গ কি.মি
✿➢৬৩) বাংলাদেশ সরকারে বিভাগ – ৩ টি
✿➢৬৪) আইনবিভাগের কাজ – আইন প্রনয়ন ও প্রচলিত আইনের সংশোধন
✿➢৬৫) আইন বিভাগের একটি অংশ – আইনসভা
✿➢৬৬) এপ্রিল মাসের গড় তাপমাত্রা – কক্সবাজার ২৭.৬৪ ডিগ্রী, নারায়ণগঞ্জে ২৮.৬৬ ডিগ্রী, রাজশাহীতে ৩০ ডিগ্রী
✿➢৬৭) গ্রীষ্মকালে বাংলাদেশের উপর দিয়ে বয়ে যায় – দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমী বায়ু
✿➢৬৮) কালবৈশাখী ঝড় আঘাত হানে – পশ্চিম ও উত্তর পশ্চিম দিক থেকে
✿➢৬৯) প্রলয়ংকারী ঘূর্ণিঝড় হয় – ১৯৯১ সালের ২৯ এপ্রিল
✿➢৭০) বাংলাদেশে বর্ষাকাল – জুন হতে অক্টোবর মাস
✿➢৭১) প্রচুর বৃষ্টিপাত হয় – জুন মাসের শেষ দিকে মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে
✿➢৭২) বর্ষাকালে আবহাওয়া সর্বদা – উষ্ণ থাকে
✿➢৭৩) বর্ষাকালে গড় উষ্ণতা – ২৭ ডিগ্রী সে.
✿➢৭৪) বর্ষাকালে সবচেয়ে বেশি গরম পড়ে – জুন ও সেপ্টেম্বর মাসে
✿➢৭৫) বাংলাদেশের মোট বৃষ্টিপাতের – ৪/৫ ভাগ হয় হয় বর্ষাকালে
✿➢৭৬) বর্ষাকালে সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন গড় বৃষ্টিপাত হয় – ৩৪০ ও ১১৯ সে.মি
✿➢৭৭) বর্ষাকালে ক্রমে বৃষ্টিপাত বেশি হয় – পশ্চিম হতে পূর্ব দিকে
✿➢৭৮) বর্ষাকালে বিভিন্ন জেলার বৃষ্টিপাতের পরিমান –পাবনায় প্রায় ১১৪, ঢাকায় ১২০, কুমিল্লায় ১৪০, শ্রীমঙ্গলে ১৮০ এবং রাঙ্গামাটিতে ১৯০ সে.মি
✿➢৭৯) বর্ষাকালে প্রচুর বৃষ্টিপাত হয় – মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে
✿➢৮০) বর্ষাকালে পর্বতের পাদদেশে এবং উপকূলবর্তী অঞ্চলের কোথাও বৃষ্টিপাত – ২০০ সে.মি কম হয়
✿➢৮১) বর্ষাকালে বিভিন্ন অঞ্চলের বৃষ্টিপাত – সিলেটের পাহাড়ী অঞ্চলে ৩৪০ সেমি, পটুয়াখালীতে ২০০ সেমি, চটগ্রামে ২৫০ সেমি, রাঙ্গামাটিতে ২৮০ সেমি এবং
কক্সবাজারে ৩২০ সেমি।
✿➢৮২) জলবায়ু পরিবর্তনের কারনে সমুদ্রপৃষ্টের উচ্চতা প্রতি বছর গড়ে বৃদ্ধি – ৪ মিমি থেকে ৬ মিমি ( হিরন পয়েন্ট, চর চংগা, কক্সবাজার)
✿➢৮৩) গত ৪ হাজার বছরে ভূমিকম্পে পৃথিবীতে মানুষ মারা যায় – প্রায় ১ কোটি ৫০ লাখ
✿➢৮৪) ভৌগোলিক ভাবে বাংলাদেশের অবস্থান – ইন্ডিয়ান ও ইউরোপিয়ান প্লেটের সীমানায়
✿➢৮৫) বাংলাদেশে ভূমিকম্পের মানবসৃষ্ট কারন – পাহাড় কাটা
✿➢৮৬) ভূমিকম্পের ফলে সমুদ্রের পানি উপকূলে উঠে – ১৫-২০ মিটার উঁচু হয়ে
✿➢৮৭) ভূমিকম্পের ফলে সৃষ্টি হয় – সুনামি
✿➢৮৮) ইন্দোনেশিয়ায় মারাত্নক সুনামি আঘাত হানে – ২০০৪ সালের ২৬ ডিসেম্বর
✿➢৮৯) বাংলাদেশে ভূমিকম্প হয়ে থাকে – টেকটনিক প্লেটের সংঘর্ষের কারনে
✿➢৯০) বাংলাদেশের ভূমিকম্প বলয় মানচিত্র তৈরি করেছিলেন – ফরাসি ইঞ্জিনিয়ার কনসোর্টিয়াম ১৯৮৯ সালে
✿➢৯১) তিনি বলয় দেখিয়েছেন – ৩ টি
✿➢৯২) বলয়গুলোকে ভাগ করেছেন – প্রলয়ংকারী, বিপজ্জনক, লঘু
✿➢৯৩) এই বলয় সমূহকে বলা হয় – সিসমিক রিস্ক জোন
✿➢৯৪) বরেন্দ্রভূমি – নওগাঁ, রাজশাহী, বগুড়া, জয়পুরহাট, রংপুর ও দিনাজপুরের অংশ বিশেষ নিয়ে গঠিত
✿➢৯৫) বরেন্দ্রভূমির আয়তন – ৯৩২০ বর্গ কি.মি
✿➢৯৬) প্লাবন সমভূমি থেকে এর উচ্চতা – ৬ থেকে ১২ মিটার
✿➢৯৭) বরেন্দ্র অঞ্চলের মাটি – ধূসর ও লাল বর্ণের
✿➢৯৮) মধুপুর ও ভাওয়ালের সোপানের আয়তন – ৪,১০৩ বর্গ কি.মি
✿➢৯৯) সমভূমি থেকে এর উচ্চতা – ৬থেকে ৩০ মিটার
✿➢১০০) মধুপুর ও ভাওয়ালের মাটি – লালচে ও ধূসর
১০১) লালমাই পাহাড় – কুমিল্লা শহর থেকে ৮ কি.মি পশ্চিমে
১০২) লালমাই পাহাড়ের আয়তন – ৩৪ বর্গ কি.মি
১০৩) এই পাহাড়ের উচ্চতা–২১ মিটার
১০৪) লালমাই পাহাড়ের মাটি- লালচে, এবং নুড়ি, বালি ও কংকর মিশ্রিত
১০৫) বাংলাদেশের নদী বিধৌত বিস্তীর্ণ সমভূমি – প্রায় ৮০%
১০৬) প্লাবন সমভূমির আয়তন – ১,২৪,২৬৬ বর্গ কি.মি
১০৭) প্লাবন সমভূমি – দেশের উত্তর পশ্চিমে অবস্থিত রংপুর ও দিনাজপুর জেলার অধিকাংশ
১০৮) উপকূলীয় সমভূমি – নোয়াখালী, ফেনীর নিম্নভাগ থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত
১০৯) স্রোতজ সমভূমি – খুলনা পটুয়াখালী ও বরগুনা জেলার কিয়দংশ
১১০) জনসংখ্যায় বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান – ৯ম
১১১) ২০০১ সালে জনসংখ্যা ছিল – ১২.৯৩ কোটি
(২০১৭সালে১৬৩,১৮৭,০০০ জন প্রায়)
১১২) জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ছিল – ১.৪৮%
১১৩) বর্তমানে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার – ১.৩৭ %
১১৪) আদমশুমারি ২০১১ অনুযায়ী জনসংখ্যা – ১৪.৯৭ কোটি (১৪,৯৭,৭২,৩,৬৪ জন)
১১৫) প্রতি বর্গকিলোমিটারে বাস করে – ১১০৬ জন
১১৬) জনসংখ্যার ঘনত্ব সবচেয়ে কম – পার্বত্য অঞ্চল ও সুন্দরবনে
১১৭) শীত গ্রীষ্মের তারতম্য বেশী – দেশের উত্তরাঞ্চলে
১১৮) বর্তমানে মাথাপিছু জমির পরিমান – ০.২৫ একর
১১৯) বাংলাদেশের জলবায়ু – ক্রান্তীয় মৌসুমী জলবায়ু
১২০) বাংলাদেশে শীতকাল- নভেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি
১২১) শীতকালে দেশের সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা – ২৯ ডিগ্রী ও ১১ ডিগ্রী সে.
১২২) বাংলাদেশের শীতলতম মাস- জানুয়ারি
১২৩) জানুয়ারি মাসের গড় তাপমাত্রা – ১৭.৭ ডিগ্রী সে.
১২৪) জানুয়ারি মাসে সবচেয়ে কম তাপমাত্রা – দিনাজপুরে ১৬.৬
১২৫) বাংলাদেশে গ্রীষ্মকাল – মার্চ থেকে মে মাস
১২৬) গ্রীষ্মকালে সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা – ৩৮ এবং ২১ ডিগ্রী সে.
১২৭) উষ্ণতম মাস – এপ্রিল মাস
১২৮) মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ মুসলিম লীগের দাপ্তরিক ভাষা উর্দু করার প্রস্তাব দেন – ১৯৩৭ সালে
১২৯) ব্রিটিশ শাসনের অবসান হয় – ১৯৪৭ সালের ১৪ আগষ্ট
১৩০) মুসলিম লীগের দাপ্তরিক ভাষা উর্দু করার প্রস্তাবের বিরোধীতা করেন – শেরে বাংলা এ.কে. ফজলুল হক
১৩১) চৌধুরী খালেকুজ্জামান পাকিস্তানের রাষ্ট্র ভাষা উর্দু করার দাবি করেন – ১৯৪৭ সালের ১৭ মে
১৩২) চৌধুরী খালেকুজ্জামান এর প্রস্তাবের বিরোধীতা করেন – ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ এবং ড. এনামুল হক
১৩৩) ‘ গণ আজাদী লীগ’ গঠিত হয় – ১৯৪৭ সালে কারুদ্দিন আহমদের নেতৃত্বে
১৩৪) গণ আজাদী লীগের দাবি ছিল – মাতৃভাষায় শিক্ষা দান
১৩৫) তমদ্দুন মজলিশ গঠিত হয় – ১৯৪৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর
১৩৬) তমদ্দুন মজলিশ গঠিত হয় – অধ্যাপক আবুল কাশেমের নেতৃত্বে
১৩৭) ভাষা সংগ্রাম পরিষদ গঠন করে – তমদ্দুন মজলিশ
১৩৮) উর্দুকে পাকিস্তানের রাষ্ট্র ভাষা করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় – ১৯৪৭ সালের ডিসেম্বর মাসে
১৩৯) বাংলাকে উর্দু ও ইংরেজির পাশাপাশি পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা করার দাবি জানান – ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ( ১৯৪৮ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি)
১৪০) সর্বদলীয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদ গঠিত হয় – ১৯৪৮ সালের ২ মার্চ
১৪১) বাংলা ভাষা দাবি দিবস পালনের ঘোষণা দেয় যে তারিখকে – ১৯৪৮ সালে ১১ মার্চকে
১৪২) পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্র লীগ ( বর্তমান ছাত্র লীগ) গঠিত হয় – ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি
১৪৩) ৮ দফা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় – ১৯৪৮ সালের ১৫ মার্চ
১৪৪) ৮ দফা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় – মুখ্য মন্ত্রী খাজা নাজিমুদ্দিন ও রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদের মধ্যে
১৪৫) মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ রেসকোর্স ময়দানে উর্দুকে রাষ্ট্রভাষার করার কথা ঘোষণা দেন – ১৯৪৮ সালের ২১ মার্চ

১৪৬) খাজা নাজিমুদ্দিন উর্দুকে রাষ্ট্রভাষা করার ঘোষণা দেন- ১৯৫২ সালের ২৬ জানুয়ারি পল্টন ময়দানে
১৪৭) রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদ নতুন ভাবে গঠিত হয় – ১৯৫২ সালের ৩০ জানুয়ারি ( আবদুল মতিন আহবায়ক)
১৪৮) ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি কর্মসূচি পালনের পরামর্শ দেন – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান
১৪৯) ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি – সকাল ১১ টায় সভা অনুষ্ঠিত হয়
১৫০) ২১ ফেব্রুয়ারির সভা অনুষ্ঠিত হয় – ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আমতলায়
এরকম আরো গুরত্বপূর্ন সব পোস্ট সাথে সাথে পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে দিয়ে রাখুন।
১৫১) সভায় সিদ্ধান্ত হয় – ১০ জন করে মিছিল করবে
১৫২) শহীদ শফিউর মৃত্যুবরণ করেন – ১৯৫২ সালের ২২ফেব্রুয়ারি
১৫৩) প্রথম শহীদ মিনার নির্মান করা হয় – ১৯৫২ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা মেডিকেল কলেজের সামনে
১৫৪) প্রথম শহীদ মিনার উদ্বোধন – ১৯৫২ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি
১৫৫) প্রথম শহীদ মিনার উদ্বোধন করেন – ভাষা শহীদ শফিউরের পিতা
১৫৬) একুশে ফ্রব্রুয়ারির উপর প্রথম কবিতা লেখেন – চট্টগ্রামের কবি মাহবুব উল আলম
১৫৭) ভাষা আন্দোলনের প্রথম কবিতার নাম – কাঁদতে
আসিনি ফাঁসির দাবি নিয়ে এসেছি
১৫৮) আলাউদ্দিন আল আজাদ রচনা করেন – স্মৃতির মিনার কবিতাটি
১৫৯) ভাষা আন্দোলনের গান – আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারি ( আব্দুল গাফফার চৌধুরী)
১৬০) আব্দুল লতিফ রচনা করেন – ওরা আমার মুখের ভাষা কাইড়া নিতে চায়
১৬১) মুনীর চৌধুরী ঢাকা জেলে বসে রচনা করেন – কবর নাটক
১৬২) জহির রায়হান রচনা করেন – আরেক ফাল্গুন উপন্যাস
১৬৩) বাংলাকে পাকিস্তানের সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত করে – ১৯৫৬ সালে
১৬৪) বাঙ্গালীর পরিবর্তী সব আন্দোলনের প্ররণা দিয়েছিল – ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন
১৬৫) শহীদ দিবস পালন শুরু হয় – ১৯৫৩ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে
১৬৬) শহীদ দিবসকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ঘোষণা করে – UNESCO
১৬৭) ইউনেস্কো আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ঘোষণা করে – ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর
১৬৮) পৃথিবীতে ভাষা রয়েছে – ৬০০০ এর বেশি
১৬৯) পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ গঠিত হয় – ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন
১৭০) গঠনের স্থান – ঢাকার রোজ গার্ডেন
১৭১) সভাপতি ছিলেন – মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী
১৭২) সাধারণ সম্পাদক ছিলেন – শামসুল হক ( টাঙ্গাইল)
১৭৩) যুগ্ন সম্পাদক ছিলেন – শেখ মুজিবুর রহমান
১৭৪) ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট গঠনের উদ্যোগ ছিল – আওয়ামী লীগের
১৭৫) পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী লীগ নামকরন করা হয় – ১৯৫৫ সালে
১৭৬) যুক্তফ্রন্ট গঠনের সিদ্ধান্ত হয় – ১৯৫৩ সালের ১৪ নভেম্বর
১৭৭) যুক্তফ্রন্ট গঠিত হয় – ৪ টি দল নিয়ে
১৭৮) যুক্তফ্রন্টের ইশতেহার ছিল – ২১ টা
১৭৯) প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৫৪ সালের মার্চে
১৮০) পূর্ব বাংলার প্রাদেশিক পরিষদের আসনছিল – ২৩৭ টি
১৮১) যুক্তফ্রন্ট আসন লাভ করে – ২২৩ টি
১৮২) ২১ দফার প্রথম দফা ছিল – বাংলাকে পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা করা
১৮৩) যুক্তফ্রন্টের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহন করেন – এ.কে ফজলুল হক ( ১৯৫৪ সালের ৩ এপ্রিল)
১৮৪) যুক্তফ্রন্ট সরকার ক্ষমতায় ছিল – ৫৬ দিন
১৮৫) যুক্তফ্রন্ট সরকারকে বরখাস্ত করে – ১৯৫৪ সালের ৩০ মে
১৮৬) বরখাস্ত করেন – গভর্নর জেনারেল গোলাম মোহাম্মদ
১৮৭) বরখাস্তের ইস্যু ছিল – আদমজি ও কর্ণফুলি কাগজ কলে বাঙ্গালিঅবাঙ্গা লি দাঙ্গা।
১৮৮) বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষণা প্রচার করা হয় – ইপিআর ট্রান্সমিটার, টেলিগ্রাম ও টেলিপ্রিন্টারের মাধ্যমে
১৮৯) বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ঘোষণা চট্টগ্রাম থেকে প্রচার করেন – ২৬ মার্চ দুপুর ও সন্ধ্যায় এম, এ, হান্নান
১৯০) মেজর জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা পত্র পাঠ করেন – ২৭ মার্চ সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের কালুর ঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে
১৯১) বাঙ্গালী পাকিস্তানের শাসনের অধীনে ছিল- ২৪ বছর
১৯২) মেহেরপুর জেলার অন্তর্গত – বৈদ্যনাথ তলাএবং আম্রকানন
১৯৩) বৈদ্যনাথ তলার বর্তমান নাম – মুজিবনগর
১৯৪) মুজিবনগর সরকার গঠিত হয় – ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল
১৯৫) বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা আদেশ আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষিত হয় – ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল
১৯৬) মুজিবনগর সরকার শপথ গ্রহন করে – ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল
১৯৭) মুজিব নগর সরকারের রাষ্ট্রপতি ও মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান
১৯৮) উপরাষ্ট্রপতি – সৈয়দ নজরুল ইসলাম
১৯৯) প্রধান মন্ত্রী – তাজ উদ্দীন আহমেদ
২০০) অর্থমন্ত্রী – এম. মনসুর আহমদ
২০১)মুজিবনগর সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী – এ.এইচ. এম. কামারুজ্জামান
২০২) মুজিবনগর সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী – খন্দকার মোশতাক আহমেদ
❍☞২০৩) মুজিব নগর সরকারের শপথবাক্য পাঠ করান – অধ্যাপক ইউসুফ আলী
❍☞২০৪) মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি ছিলেন – কর্ণেল ( অব.) এম.এ. জি ওসমানী
❍☞২০৫) মুজিব নগর সরকারের প্রধান উদ্দেশ্য ছিল – মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনা ও বাংলাদেশের পক্ষে বিশ্বে জনমত সৃষ্টি করা
❍☞২০৬) মুজিবনগর সরকারের মন্ত্রনালয় ছির – ১২ টি
❍☞২০৭) মুজিবনগর সরকারের বিশেষ দূত ছিলেন – বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরী
❍☞২০৮) বাংলাদেশে কয়টি সামরিক জোনে ভাগ করা হয় – ৪ টি ( ১৯৭১ সাল ১০ এপ্রিল)
❍☞২০৯) ৪ সামরিক জোনে ছিলেন – ৪ জন সেক্টর কমান্ডার
❍☞২১০) ১১ এপ্রিল পুনঃরায় ভাগ করা হয় – ১১ টি সেক্টরে
❍☞২১১) মুক্তিযুদ্ধের ব্রিগেড ফোর্স ছিল – ৩ টি
❍☞২১২) কাদেরীয়া বাহিনী ছিল – টাঙ্গাইলের
❍☞২১৩) ইপিআর – ইষ্ট পাকিস্তান রাইফেল
❍☞২১৪) বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে বলা যায় – গণযুদ্ধ বা জনযুদ্ধ
❍☞২১৫) ভারতে শরার্থী ছিল – ১ কোটি
❍☞২১৬) বুদ্ধিজীবীদের হত্যাকরা হয় – ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর
❍☞২১৭) ১১ দফা আন্দোলন হয়েছিল – ১৯৬৮ সালে
❍☞২১৮) ১৯৭১ সালের মার্চ মাসে চলছিল – বঙ্গবন্ধুর অসহযোগ আন্দোলন
❍☞২১৯) মুজিবনগর সরকারের অধীনে ” পরিকল্পনা সেল ” গঠন করে – পেশাজীবীরা
❍☞২২০) মুক্তিযুদ্ধে সম্ভ্রম হারান – প্রায় তিন লক্ষ নারী
❍☞২২১) স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র চালু করেন – চট্টগ্রাম বেতারের শিল্পী ও সংস্কৃতিনকর্মীরা
❍☞২২২) ভারত বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয় – ৬ ডিসেম্বর১৯৭১

❍☞২২৩) মুক্তি বাহিনী ও ভারতীয় বাহিনী মিলে গঠিত হয় – যৌথ কমাণ্ড
❍☞২২৪) মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে বহির্বিশ্বে প্রচারের প্রধান কেন্দ্র ছিল – লন্ডন
❍☞২২৫) কনসার্ট ফর বাংলাদেশ এর শিল্পী ছিলেন – জর্জ হ্যারিসন
❍☞২২৬) কনসার্ট ফর বাংলাদেশ অনুষ্ঠিত হয় – যুক্তরাষ্ট্রর নিউইয়র্ক শহরে ( ৪০০০০ লোক ছিল)
❍☞২২৭) স্বাধীন বাংলাদেশ সরকার ক্ষমতা গ্রহন করে – ১৯৭১ সালের ২২ ডিসেম্বর
❍☞২২৮) বঙ্গবন্ধু দেশে ফিরে আসেন – ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি
❍☞২২৯) অস্থায়ী সংবিধান আদেশ জারি করা হয় – ১৯৭২ সালের ১১ জানুয়ারি
❍☞২৩০) অস্থায়ী সংবিধান আদেশ জারি করেন – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান
❍☞২৩১) গণপরিষদের প্রথম অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৭২ সালের ১০ এপ্রিল
❍☞২৩২) সংবিধান প্রনয়ণ কমিটির সদস ছিলেন – ৩৪ জন
❍☞২৩৩) সংবিধান কমিটি খসড়া সংবিধান পেশ করেন – ১৯৭২ সালের ১২ অক্টোবর
❍☞২৩৪) সংবিধান গণ পরিষদে গৃহীত হয় – ১৯৭২ সালের ৪ নভেম্বর
❍☞২৩৫) বাংলাদেশের সংবিধান কার্যকর হয় – ১৯৭২ সালের ১৬ ডিসেম্বর থেকে
❍☞২৩৬) সংবিধানের মূলনীতি – ৪ টি
❍☞২৩৭) বাংলাদেশ গণ পরিষদ আদেশ জারি করা হয় – ১৯৭২ সালের ২৩ মার্চ
❍☞২৩৮) বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা কমিশন – ড. কুদরত এ খুদা কমিশন
❍☞২৩৯) বাংলাদেশের প্রথম সাধারন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৭৩ সালের ৭ মার্চ
❍☞২৪০) বাংলাদেশের পররাষ্ট্র নীতি ছিল – সকলের সাথে বন্ধুত্ব, কারো সাথে শত্রুতা নয়
❍☞২৪১) প্রথম দিকে বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দান করে – ১৪০ টি দেশ
❍☞২৪২) চট্টগ্রাম বন্দরের মাইনমুক্ত করার বিষয়ে সহযোগিতা করে – সোভিয়েত ইউনিয়ন
❍☞২৪৩) ভারতীয় বাহিনী বাংলাদেশ ছাড়ে – ১৯৭২ সালের মার্চে
❍☞২৪৪) বাংলাদেশ কমনওয়েলথের সদস্য হয় – ১৯৭২ সালে
❍☞২৪৫) জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ করে – ১৯৭৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর
❍☞২৪৬) জাতি সংঘের সাধারণ অধিবেশনে সর্বপ্রথম বাংলায় ভাষণ দেন – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান
❍☞২৪৭) বঙ্গবন্ধু পুরষ্কার পান – জুলিও কুরি শান্তি পদক
❍☞২৪৮) জুলিও কুরি পদক দেয় – বিশ্বশান্তি পরিষদ
❍☞২৪৯) সংবিধান কমিটির প্রধান ছিলেন – ড. কামাল হোসেন
❍☞২৫০) সংবিধান প্রণয়ণ কমিটিতে মহিলা সদস্য ছিলেন – ১ জন
✺ ২৫১) বাংলাদেশের সংবিধান প্রনয়ণে সময় লাগে – ১০ মাস
✺ ২৫২) বাংলাদেশ সংবিধান – লিখিত ও দুষ্পরিবর্তনীয়
✺ ২৫৩) সংবিধানে ন্যায়পাল সৃষ্টির কথা বলা হয়েছে – ৭৭ নং অনুচ্ছেদে
✺ ২৫৪) বীরঙ্গনাদের সরকার ” নারী মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দেয় – ২০১৬ সালের ২৯ জানুয়ারি
✺ ২৫৫) সর্বজনীন ভোটাধিকারের নীতি – এক ব্যক্তি এক ভোট নীতি
✺ ২৫৬) সুপ্রীম কোর্ট বাতিল করে সংবিধানের – ৫ম, ৭ম ও ১৩ দশ সংশোধনী
✺ ২৫৭) জাতীয় শোক দিবস – ১৫ আগষ্ট
✺ ২৫৮) বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হয় – ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট
✺ ২৫৯) জাতীয় ৪ নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয় – ১৯৭৫ সালে ২২ আগষ্ট
✺ ২৬০) রাজনৈতিক দল ও কার্যকলাপ নিষিদ্ধ করা হয় – ১৯৭৫ সালের ৩১ আগষ্ট
✺ ২৬১) ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করেন – খন্দকার মোশতাক আহমেদ
✺ ২৬২) ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করা হয় – ১৯৭৫ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর
✺ ২৬৩) খালেদ মোশাররফ এর নেতৃত্বে সেনা অভ্যুথান হয় -১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর
✺ ২৬৪) জাতীয় ৪ নেতাকে হত্যা করা হয় – ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর
✺ ২৬৫) বাংলাদেশে সেনা শাসন আমল – ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্টের পর থেকে ১৯৯০ পর্যন্ত
✺ ২৬৬) গণতন্ত্রের যাত্রা শুরু হয় – ১৯৯১ সালে
✺ ২৬৭) জিয়াউর রহমান সেক্টর কমান্ডার ছিলেন – ২ নং সেক্টরের
✺ ২৬৮) জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রপতি পদে অধিষ্ঠিত হন – ১৯৭৭ সালের ২১ এপ্রিল
✺ ২৬৯) রাষ্টপতি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৭৮ সালের ৩ জুন
✺ ২৭০) বাংলাদেশের ২য় জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৭৯ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি
✺ ২৭১) সংবিধানের ৫ম সংশোধনী অবৈধ বলে সুপ্রীম কোর্ট রায় দেন – ২০০৮ সালে
✺ ২৭২) সার্ক গঠনের উদ্যেগক্তা – জিয়াউর রহমান
✺ ২৭৩) রাষ্টপতি জেনারেল জিয়াউর রহমান নিহত হন – ১৯৮১ সালের ৩১ মে
✺ ২৭৪) জিয়াউর রহমানের সামরিক শাসন ছিল – সাড়ে ৫ বছর
✺ ২৭৫) জেনারেল এরশাদ রাষ্টপতি হন – ১৯৮৩ সালের ১১ ডিসেম্বর
✺ ২৭৬) রাষ্টপতি এরশাদ রাজনৈতিক কার্যক্রম নিষিদ্ধ করেন – ১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ
✺ ২৭৭) সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে প্রথম বিক্ষোভ হয় – ১৯৮৩ সালে
✺ ২৭৮) গণ আন্দোলন হয় – ১৯৯০ সালে
✺ ২৭৯) জেনারেল এরশাদ পদত্যাগ করেন – ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর
✺ ২৮০) এরশাদ ক্ষমতা দখল করেন – ১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ
✺ ২৮১) ঘরোয়া রাজনীতির অনুমতি দেয়া হয় – ১৯৮৩ সালের ১ এপ্রিল
✺ ২৮২) ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৮৩ সালে
✺ ২৮৩) পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৮৪ সালে
✺ ২৮৪) এরশাদ গণভোটের আয়োজন করেন – ১৯৮৫ সালের ২১ মার্চ
✺ ২৮৫) উপজেলা পদ্ধতি চালু করেন – এরশাদ
✺ ২৮৬) উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৮৫ সালের ১৬ ও ২১ মে
✺ ২৮৭) বাংলাদেশের ৩য় জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয় – ১৯৮৬ সালের ৭ মে
✺ ২৮৮) ৪র্থ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আয়োজন করা হয় – ১৯৮৮ সালের ৩ মার্চ
✺ ২৮৯) জেনারেল এরশাদের শাসন আমল – ৯ বছর
✺ ২৯০) প্রথম গণতান্ত্রিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৯১ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি
✺ ২৯১) নুর হোসেন শহীদ হন – স্বৈরাচার বিরোধি আন্দোলন ১৯৮৭ সালের ১০ নভেম্বর
✺ ২৯২) এরশাদ জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন – ১৯৮৭ সালের ২৭ নভেম্বর
✺ ২৯৩) সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্য গঠন করা হয় – ১৯৯০ সালের ১০ অক্টোবর ( ২২ টি ছাত্র সংগঠন)
✺ ২৯৪) ডা. সামসুল আলম মিলন গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান – ১৯৯০ সালের ২৭ নভেম্বর
✺ ২৯৫) ৫ম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১৯৯১ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি
✺ ২৯৬) তত্ববধায়ক সরকারে বিল সংসদে পাশ হয় – ১৯৯৬ সালের ২৬ মার্চ
✺ ২৯৭) তত্তবধায়ক সরকারের প্রথম প্রধান উপদেষ্টা ছিলেন – বিচারপতি হাবিবুর রহমান
✺ ২৯৮) তত্ববধায়ক সরকারের অধীনে প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ১২ জুন ১৯৯৬ সালে ( ৭ম জাতীয় নির্বাচন)
✺ ২৯৯) ৮মম জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় – ২০০১ সালের ১ অক্টোবর
✺ ৩০০) বাংলাদেশে ১/ ১১ এর সময় কাল – ২০০৭ সাল
❑➫৩০১) ৮ম জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয় – ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর
❑➫৩০২) ১৯৭২ সালে বাংলাদেশের দারিদ্র্যের হার ছিল – ৭০%
❑➫৩০৩) ৪০ বছরে দারিদ্যের হার কমেছে – ৩০%
❑➫৩০৪) ৪ দশকে শিশু মৃত্যু হার কমেছে -প্রতি হাজারে ১৮৫ থেকে ৪৮
❑➫৩০৫) বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় শিক্ষানীতি প্রনীত হয় – ২০১০ সালে
❑➫৩০৬) পারিবারিক সংহিংসতা ও সুরক্ষা আইন – ২০১০ সালে প্রণীত হয়
❑➫৩০৭) জাতীয় খাদ্য নীতি – ২০০৬ সালে
❑➫৩০৮) জাতীয় শিশু নীতি প্রণীত হয় – ২০১১ সালে
❑➫৩০৯) জাতীয় শিশু নীতি ২০১১ অনুযায়ী শিশু বলে বিবেচিত হবে -১৮ বছরের কম বয়সী সব ব্যক্তি
❑➫৩১০) বাংলাদেশ পলল গঠিত – আদ্র অঞ্চল
❑➫৩১১) বাংলাদেশের পাহাড়ী অঞ্চল – উত্তর পূর্ব ও দক্ষিণ পূর্বে
❑➫৩১২) উঁচু ভুমির অবস্থান – উত্তর পশ্চিমাংশে
❑➫৩১৩) বাংলাদেশের ভূ প্রকৃতি – নিচু ও সমতল
❑➫৩১৪) দক্ষিণ এশিয়ার বড় নদী – ৩ টি( গঙ্গা, ব্রক্ষপুত্র, মেঘনা)
❑➫৩১৫) বাংলাদেশের অবস্থান – এশিয়া মহাদেশের দক্ষিণে
❑➫৩১৬) বাংলাদেশের অবস্থান – ২০.৩৪“ উত্তর অক্ষরেখা থেকে ২৬.৩৮” উত্তর অক্ষরেখার মধ্যে
❑➫৩১৭) দ্রাঘিমা রেখা – ৮৮.০১” থেকে ৯২.৪১” পূর্ব দ্রাঘিমা
❑➫৩১৮) বাংলাদেশের মাঝামাঝি দিয়ে অতিক্রম করেছে – কর্কটক্রান্তি রেখা ( ২৩.৫”)
❑➫৩১৯) বাংলাদেশের উত্তরে – পশ্চিমবঙ্গ, মেঘালয়, আসাম
❑➫৩২০) পূর্বে – আসাম, ত্রিপুরা, মিজোরাম,মায়ানমার
❑➫৩২১) দক্ষিণে – বঙ্গোপসাগর
❑➫৩২২) মোট আয়তন – ১,৪৭,৬১০ কি.মি.।
❑➫৩২৩) পৃথিবীর বৃহত্তম ব দ্বীপ – বাংলাদেশ
❑➫৩২৪) বাংলাদেশের ভু খন্ড – উত্তর থেকে দক্ষিণে ঢালু
❑➫৩২৫) বাংলাদেশের প্রায় সমগ্র অঞ্চল – এক বিস্তীর্ন সমভূমি
❑➫৩২৬) ভূ প্রকৃতির ভিত্তিতে বাংলাদেশ ভাগ করা হয় – ৩ টি শ্রেণীতে
❑➫৩২৭) টারশিয়ারে যুগের পাহাড়সমূহ – মোট ভূমির প্রায় ১২%
❑➫৩২৮) হিমালয় পর্বত উথিত হয় – টারশিয়ারি যুগে
❑➫৩২৯) দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের পাহাড় সমূহ – রাঙ্গামাটি, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি, কক্সবাজার এবং চট্টগ্রামের পূর্বাংশ
❑➫৩৩০) দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের পাহাড়গুলোর উচ্চতা – ৬১০ মিটার
❑➫৩৩১) বাংলাদেশের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ – তাজিনডং ( বিজয়)
❑➫৩৩২) বিজয়ের উচ্চতা – ১২৩১ মিটার
❑➫৩৩৩) বিজয় – বান্দরবানে অবস্থিত
❑➫৩৩৪) বাংলাদেশের ২য় সর্বোচ্চ শৃঙ্গ – কিওক্রাডং( ১২৩০ মি)
❑➫৩৩৫) আরো দুটি পাহাড় – মোদকমুয়াল ( ১০০০মি.), পিরামিড( ৯১৫মি)
❑➫৩৩৬) এই পাহাড় গুলো গঠিত – বেলে পাথর, কর্দম, শেল পাথর দ্বারা
❑➫৩৩৭) উত্তর উত্তরপূর্বাঞ্চলের পাহাড়সমূহ – ময়মনসিংহ, নেত্রকোনার উত্তরাংশ, সিলেটের উত্তর উত্তর পূর্বাংশ, মৌলভী বাজার, হবিগঞ্জের দক্ষিনের পাহাড়
❑➫৩৩৮) পাহাড় গুলোর উচ্চতা – ২৪৪ মিটার
❑➫৩৩৯) উত্তরের পাহাড়গুলো – টিলা নামে পরিচিত
❑➫৩৪০) টিলার উচ্চতা – ৩০ থেকে ৯০ মিটার
❑➫৩৪১) এ অঞ্চলের পাহাড় সমূহ – চিকনাগুল, খাসিয়া, জয়ন্তিয়া
❑➫৩৪২) প্লাইস্টোসিন কালের সোপান – দেশের মোট ভূমির ৮% নিয়ে গঠিত
❑➫৩৪৩) প্লাইস্টোসিন কাল বলা হয় – আনুমানিক ২৫,০০০ বছর পূর্বের সময়কে
❑➫৩৪৪) প্লাইস্টোসিন কালের সোপিনসমূহ – ৩ ভাগে বিভক্ত
❑➫৩৪৫) বাংলাদেশে ছোট বড় নদী রয়েছে -৭০০ টি
❑➫৩৪৬) নদীর গুলোর আয়তন দৈর্ঘ্যে – ২২,১৫৫ কি.মি
❑➫৩৪৭) পদ্মা নদী ভারতে পরিচিত – গঙ্গা নামে
❑➫৩৪৮) পদ্মা নদীর উৎপত্তিস্থল – হিমালয়ের গাঙ্গোত্রী হিমবাহে
❑➫৩৪৯) গঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করে – রাজশাহী জেলা দিয়ে
❑➫৩৫০) পদ্মা নদী যমুনার সাথে মিলিত হয় – গোয়ালন্দে
■➢৩৫১) ব্রক্ষপুত্রের প্রধান ধারা – যমুনা নদী
■➢৩৫২) পদ্মা নদী মেঘনার নাথে মিলিত হয় – চাঁদপুরে
■➢৩৫৩) গঙ্গা পদ্মা বিধৌত অঞ্চলের পরিমান – ৩৪, ১৮৮ বর্গ কি.মি
➢৩৫৪) পদ্মার শাখা নদী সমূহ – ভাগীরথী, হুগলি, মাথাভাঙ্গা, ইছামতি, ভৈরব, কুমার, কপোতাক্ষ, নবগঙ্গা, চিত্রা, মধুমতী, আড়িয়াল খাঁ
■➢৩৫৫) ব্রক্ষপুত্রের উৎপত্তি – তিব্বতের মানস সরোবর
■➢৩৫৬) বক্ষপুত্র নদী বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে – কুড়িগ্রাম জেলার মধ্য দিয়ে
■➢৩৫৭) ১৭৮৭ সালের আগে ব্রক্ষপুত্রের প্রধান ধারাটি প্রবাহিত হতো – ময়মনসিংহের মধ্যে দিয়ে উত্তর পশ্চিম থেকে দক্ষিণ পূর্বে
■➢৩৫৮) ব্রক্ষপুত্র নদের গতি পরিবর্তিত হয় – ১৭৮৭ সালের ভূমিকম্পে
■➢৩৫৯) যমুনা নদীর শাখা নদী – ধলেশ্বরী
■➢৩৬০) ধলেশ্বরী নদীর শাখা নদী – বুড়িগঙ্গা
■➢৩৬১) যমুনা নদীর উপনদী সমূহ – ধরলা, তিস্তা, করতোয়া, আত্রাই
■➢৩৬২) গঙ্গার সঙ্গমস্থল পর্যন্ত ব্রক্ষপুত্রের দৈর্ঘ্য – ২৮৯৭ কি.মি এবং আয়তন – ৫,৮০,১৬০ বর্গ কি.মি এবং এর ৪৪,০৩০ বর্গ কি.মি বাংলাদেশের
■➢৩৬৩) সুরমা ও কুশিয়ারা নদী মিলনে উৎপত্তি – মেঘনা নদী
■➢৩৬৪) সুরমা ও কুশিয়ার উৎপত্তি- আসামের বরাক নদী নাগা- মণিপুর অঞ্চলে
■➢৩৬৫) সুরমা ও কুশিয়ারা নদী বাংলাদেশে প্রবেশ করে – সিলেট জেলা দিয়ে
■➢৩৬৬) সুরমা ও কুশিয়ারা নদী মিলিত হয় – সুনামগঞ্জের আজমিরিগঞ্জে এবং কালনী নামে দক্ষিণ পশ্চিমে অগ্রসর হয়ে মেঘনা নাম ধারন করে
■➢৩৬৭) মেঘনা পুত্রের সাথে মিলিত হয় – ভৈরব বাজারের কাছে
■➢৩৬৮) বুড়িগঙ্গা, ধলেশ্বরী, ও শীতলক্ষ্যা মেঘনার সাথে মিলিত হয় – মুন্সিগঞ্জে
■➢৩৬৯) মেঘনার শাখা নদী – মুন, তিতাস, গোমতী, বাউলাই।
■➢৩৭০) বাংলাদেশের দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের প্রধান নদী – কর্ণফুলী
■➢৩৭১) কর্ণফুলি নদীর উৎপত্তি – লুসাই পাহাড়ে
■➢৩৭২) কর্ণফুলির দৈর্ঘ্য – ৩২০ কি.মি
■➢৩৭৩) কর্ণফুলির প্রধান উপনদী – কাপ্তাই, হালদা, কাসালাং, রাঙখিয়াং
■➢৩৭৪) বাংলাদেশের প্রধান সমুদ্র বন্দর – চট্টগ্রাম কর্ণফুলির তীরে অবস্থিত
■➢৩৭৫) তিস্তা নদীর উৎপত্তি – সিকিমের পার্বত্য অঞ্চল
■➢৩৭৬) তিস্তা নদী – ভারতের জলপাইগুড়ি ও দার্জিলিং হয়ে ডিমলা অঞ্চল দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে
■➢৩৭৭) তিস্তা নদীরর গতিপথ পরিবর্তিত হয় – ১৯৮৭ সালের বন্যায়

Advertisements

Primary School Teacher Exam Suggestions

পরীক্ষার জন্য বিগত সালে আসা বাছাইকৃত ১২৫০টি

প্রশ্নোত্তর থেকে আজ ১০০টি রিভিশন দেন….

বাংলা–সাহিত্য

০১) কপালকুণ্ডলা(১৮৬৬) যে প্রকৃতির রচনা?

__রোমান্সধর্মী উপন্যাস

(নায়ক নবকুমার ও কপালকুণ্ডলা)

০২) তুমি অধম তাই বলে আমি উত্তম হইবো না কেন?

__বঙ্কিমচন্দ্রের কপালকুণ্ডলা উপন্যাসের উক্তি।

০৩) স্বাধীনতা, এই শব্দটি কীভাবে আমাদের

হলো’কবিতাটির রচয়িতা কে?

__নির্মেলেন্দু গুণ

০৪) আধ্যাত্মিকা”গ্রন্থের লেখক কে?

__প্যারিচাঁদ মিত্র

০৫) চোখের বালি(১৯০৩)” উপন্যাসটির লেখক কে?

__রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

০৬) তুমি আসবে বলে হে স্বাধীনতা”কার কবিতা?

__শামসুর রাহমানের

০৭) শূন্যপুরাণ”রচনা করেন কে?

__রামাই পণ্ডিত

০৮) সুকান্ত ভট্টাচার্য কর্তৃক সম্পাদিত পত্রিকার নাম

কী?

__আকাল

০৯) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের “ছিন্নপত্রের” অধিকাংশ পত্র

কাকে উদ্দশ্য করে লেখা?

__ইন্দিরা দেবীকে।

১০) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের “ভানুসিংহ”ঠাকুরের

পদাবলীর ভাষা কী?

__ব্রজবুলি

১১) সর্বপ্রথম বিধবাবিবাহের পক্ষ্যে আন্দোলন করেন

কে?

__ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর।

১২) বর্ণপরিচয়”এর রচয়িতা কে?

__ঈশ্বচন্দ্র বিদ্যাসাগর।

১৩) অশোক সৈয়দ”কার ছন্মনাম?

__আব্দুল মান্নান সৈয়দ এর।

১৪) গাড়ি চলে না,চলে না, চলে না রে”গানটির

গীতিকার কে?

__শাহ্ আব্দুল করিমের।

১৫) মোরা একটি ফুলকে বাঁচাবো বলে যুদ্ধ করি”গানটির

রচয়িতা কে?

__গোবিন্দ হালদার

১৬) সনেট এর কয়টি অংশ?

__২টি(ভাবের প্রবর্তনা ও পরিণতি)

১৭) বাংলা সাহিত্যে অন্যতম বিশিষ্ট পত্রিকা

“কল্লোল”কত সালে প্রকাশিত হয়?

__১৯২৩ সালে।

১৮) তত্ত্ববোধিনী পত্রিকার সম্পাদক কে ছিলেন?

__অক্ষয়কুমার দত্ত

১৯) পূর্বাশা পত্রিকার সম্পাদক কে ছিলেন?

__সঞ্জয় ভট্টাচার্য

# ____ব্যাকরণ

২০) ব্যাকরণ ভাষাকে কী করে?

___বিশ্লেষণ করে।

২১) স্ত্রী<ইস্ত্রী হয়েছে কোন প্রকিয়ায়?

__আদি স্বরাগম

২২) অনাদর শব্দটির ব্যাসবাক্য কী?

__ন আদর

২৩) মা ছিল না বলে কেই তার চুল বেঁধে দেয় নি”এটি কি

ধরনের বাক্য?

__সরল বাক্য

২৪)’ড়, ঢ়’ কী জাতীয় ধ্বনি?

__তাড়নজাত

২৫) ণ-ত্ব,ষ-ত্ব বিধান কোন শব্দে হয়?

__তৎসম বা সংস্কৃত শব্দে।

২৬)বাংলা ব্যাকরণের কোন অংশে “সন্ধি” আলোচনা

করা হয়?

__ধ্বনিতত্ত্বে

২৭)পিত্রালয়” এর সন্ধি বিচ্ছেদ কী?

__পিতৃ+আলয়

২৮)পরস্পর”কোন ধরনের সন্ধি?

__নিপাতনে সিদ্ধ

২৯)সম্+চয়”এটা কোন ধরনের সন্ধি?

__ব্যঞ্জন সন্ধি

৩০)পরীক্ষা”এর সন্ধি বিচ্ছেদ কী?

__পরি+ঈক্ষা

৩১)কোন প্রত্যয়যুক্ত শব্দে মূর্ধন্য-ষ হয় না?

__সাৎ

৩২)সমাসের রীতি কোন ভাষা থেকে এসেছে?

__সংস্কৃত ভাষা থেকে।

৩৩)আলোছায়া” পদটি কোন সমাস?

__দ্বন্দ্ব সমাস(আলো ও ছায়া)

৩৪)প্রভাতে উঠিল রবি লোহিত বরণ”

এখানে ‘প্রভাতে’ কোন কারকে?

__অধিকরণে ৭মী

৩৫)”ষোলকলা’শব্দের অর্থ কী?

__সম্পূর্ণ

৩৬)”ফুটিফাটা” বাগধারার অর্থ কী?

__চৌচির

৩৭)যা দমন করা যায় না” এক কথায় কী?

__অদম্য

৩৮)যে রোগ নির্ণয় করতে হাতরে মরে?এক কথায় কী?

__হাতুড়ে

৩৯)বিশেষ খ্যাতি আছে যার”এক কথায়?

__বিখ্যাত।

৪০)প্রাচ্য এর বিপরীত কী?

__প্রতীচ্য

৪১)নির্মল শব্দের বিপরীত কী?

__পঙ্কিল

৪২)”Pragmatic”এর সঠিক অর্থ কী?

__বাস্তবধর্মী

৪৩)Justification for”এর সঠিক অনুবাদ

__সমর্থন।

# বাংলাদেশ_বিষয়াবলি_ও_ইংরেজি

৪৪)খাসিয়া গ্রামগুলো কী নামে পরিচিত?

__পুঞ্জি

৪৫)বর্ণালি ও শুভ্রা” কিসের জাত?

__উন্নত জাতের ভুট্টা

৪৬)বাংলাদেশের ডাক বিভাগে ডাক টাকা চালু হয়

কবে?

__১১ডিসেম্বর ২০১৭ সালে।

৪৭)মুজিবনগর কোথায় অবস্থিত?

__মেহেরপুর জেলায়।

৪৮) ৬দফা দাবী কোথায় উত্থাপিত হয়?

__লাহোরে।

৪৯)ব্রিটিশ ভারতের শেষ ভাইসরয় এর নাম কী?

__লর্ড মাউন্টব্যাটেন।

৫০)মুক্তিযুদ্ধের সময় যশোর জেলা কত নং সেক্টরের

অধীনে ছিল?

__৮নং সেক্টরে।

৫১)বাংলাদেশ জাতি সংঘের কততম সদস্য?

__১৩৬তম

৫২)বাংলাদেশের পরমাণু শক্তি কমিশন কত সালে গঠিত

হয়?

__১৯৭৩ সালে।

৫৩)মৌর্য ও গুপ্ত বংশের রাজধানী কোথায় ছিল?

__পাটলিপুত্রে

৫৪)বাংলার প্রথম স্বাধীন রাজা কে?

__রাজা শশাঙ্ক

৫৫)প্রথম মুসলিম বিজেতা কে?

__মুহম্মদ বিন কাশিম

৫৬)শাহ্ ই বাঙ্গালা”কার উপাধি?

__শামসুদ্দিন ইলিয়াস শাহ

৫৭)কবে ইউনেস্কো ২১শে ফব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক

মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়?

__১৭ নভেম্বর ১৯৯৯ সালে।

৫৮)গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের স্বাধীনতার

ঘোষণাপত্র পাঠ করেন কে?

__অধ্যাপক এম.ইউসুফ আলী

৫৯)স্বাধীন বাংলাদেশকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কবে

স্বীকৃতি দেয়?

__৪এপ্রিল ১৯৭২ সালে।

৬০)রাজবংশী নামক ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী কোথায় বাস করে?

__রংপুর ও শেরপুরে।

৬১)বাংলাদেশে পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা হয়েছে

কতটি?

__৭টি

৬২)বর্তমানে মোট উপজেলা কতটি?

__৪৯২টি

৬৩)”Product of the year-2018 কোন পণ্যটি?

__ওষুধ

★৬৪)বাংলাদেশে প্রথম রেললাইন স্থাপন করা হয়

কোথায়?

__দর্শনা-জগতি(কুষ্টিয়া)

৬৫)সংবিধান দিবস কত তারিখে?

__৪ নভেম্বরে।

৬৬)সংবিধানের কোন অনুচ্ছেদে “চলা ফেরার

স্বাধীনতার “কথা বলা আছে?

__৩৬ নং অনুচ্ছেদে।

# ____English____

৬৭) A person devoid of knowledge”

__Ignorant

৬৮) The book “Ivanhoe”is written by?

__Sir Walter Scott

৬৯)The poem”Solitary Reaper”is written by?

__William Wordsworth

৭০)The man lapsed___past memories”

___into

৭১)Divide the money__the two boys”

__between

৭২)Kamal is good__cricket.

__at

৭৩)I shall do it__pleasure.

__with

৭৪)I am fatigued__wide travelling.

__by

৭৫)He is used to__hard.

__working

৭৬)The committee__divided in their opinion.

__were

৭৭)Nine thousand taka__a good

amount of money.

__is

৭৮)The word “substantiate”is a

__verb

৭৯)The word “decision”is a

__noun

৮০)The word “wonderful”is a/an

__adjective

# English translation of the Bengali sentence.

৮১)অপমানের চেয়ে মৃত্যু শ্রেয়…

__Death is preferable to dishonour.

৮২)শিশুটি হাসতে হিসতে মায়ের নিকট এলো।

__The baby came to its mother laughing.

→The passive from of___

৮৩) Do you know the man?’is

__Is the man known to you.

৮৪) “Let me do the work”is

__Let the work be done by me.

→The indirect narration of the sentence.

৮৫) He said,Good morning sir”is

__He respectfully wished good morning to the person spoken to.

৮৬)Akbar said, What a fine picture it is!

__Akbar exclaimed that it was a very fine picture.

Completed by__Ramjan

Idioms and Phrases

_________________________________

৮৭)→Block head___Foolish

৮৮)→By and large___Mostly

৮৯)→Fits and starts___irregularly

৯০)→White colour job___A job without manual labour.

Correct Spelling

_________________________________

৯১)→Millennium

৯২)→Caterpillar

৯৩)→Dysentery

৯৪)→Misspell

৯৫)→Bureaucrat

৯৬)→Tuition

৯৭)→Humorous

৯৮)→Curruption

Antonyms

_________________________________

৯৯)→Adulterate__Pure

১০০)→Altruism__Meanness

সাধারণ জ্ঞান : আন্তর্জাতিক
গোয়েন্দা সংস্থা :

১। ফেয়ারফ্যাক্স- যুক্তরাষ্ট্র
২। স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড- যুক্তরাজ্য
৩। মুখবরাত- মিশর
৪। মোসাদ- ইসরায়েল
৫। আমান- ইসরায়েল
৬। সাভাক- ইসরায়েল
৭। র ( RAW) – ভারত
৮। আইএসআই- পাকিস্তান

বিমানসংস্থার নাম:

১। ইন্দোনেশিয়া – গারুদা
২। জার্মানি – লুফথানসা
৩। রাশিয়া – এরোফ্লট
৪। ট্রান্স ওয়ার্ল্ড এয়ার লাইনস- যুক্তরাষ্ট্র

বিমানবন্দর :

১। হিথ্রো বিমানবন্দর – লন্ডন
২। সুবর্ণভূমি বিমানবন্দর – নেপাল

দিবস:

১। বিশ্ব নারী দিবস- ৮ মার্চ
২। বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস- ৭ এপ্রিল
৩। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনী দিবস- ২৯ মে
৪। বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস- ৩১মে
৫। বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস- ১১ জুলাই
৬। বিশ্ব আদিবাসী দিবস – ৯ আগস্ট
৭। বিশ্ব সাক্ষরতা দিবস – ৮ সেপ্টেম্বর
৮। আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস – ১৫ সেপ্টেম্বর
৯। বিশ্ব অহিংস দিবস – ২ অক্টোবর
১০৷ বিশ্ব খাদ্য দিবস – ১৬ অক্টোবর
১১। বিশ্ব এইডস দিবস – ১ ডিসেম্বর
১২। বিশ্ব দুর্নীতি বিরোধী দিবস – ৯ ডিসেম্বর
১৩। বিশ্ব মানবাধিকার দিবস- ১০ ডিসেম্বর

নতুন ও পুরাতন নাম:

১। জিম্বাবুয়ে – দক্ষিণ রোডেশিয়া
২। বারকিনা ফাসো- আপার ভোল্টা
৩। কঙ্গো প্রজাতন্ত্র – জায়ারে
৪। ঘানা- গোল্ড কোস্ট
৫। জাম্বিয়া- উত্তর রোডেশিয়া
৬। নেদারল্যান্ড – হল্যাণ্ড
৭। চীন- ক্যাথে
৮। জার্মানি- ডয়েচেল্যান্ড

পর্বত:

১। আন্দিজ পর্বতমালা- দক্ষিণ আমেরিকা
২। পৃথিবীর সর্বোচ্চ পর্বত- মাউন্ট এভারেস্ট
৩। এডামস পিক- শ্রীলঙ্কা
৪। তোরাবোরা গুহা/ পাহাড় – আফগানিস্তান
৫। কিনাবালু- মালয়েশিয়া

উপত্যকা :

১। সোয়াত উপত্যকা – পাকিস্তান
২। মৃত্যু উপত্যকা – আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র

মরুভূমি :

১। সাহারা মরুভূমি – পৃথিবীর সবচেয়ে মরুভূমি। একে ” আফ্রিকার দুঃখ ” বলা হয়।
২। গোবি মরুভূমি – ( মঙ্গোলিয়া-চীন)
৩। কালাহারি মরুভূমি – আফ্রিকা
৪। তাকলামাকান- চীন
৫। থর- (ভারত-পাকিস্তান)
৬। চিহুয়াহুয়ান- (মেক্সিকো – যুক্তরাষ্ট্র)

সাগর তীরবর্তী রাষ্ট্র :

১। ভূমধ্যসাগর – মিশর, লিবিয়া, আলজেরিয়া, তিউনেসিয়া, মরক্কো, স্পেন, ফ্রান্স, ইতালি, স্লোভেনিয়া, ক্রোয়েশিয়া, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা, মন্টেনিগ্রো, আলবেনিয়া, গ্রিস, তুরস্ক, সাইপ্রাস, সিরিয়া, লেবানন, ইসরায়েল

স্থলবেষ্টিত রাষ্ট্র :

১। বিশ্বের মোট স্থল বেষ্টিত দেশের সংখ্যা – ৪৫টি
২। এশিয়া- নেপাল, ভুটান, আফগানিস্তান, লাওস, মঙ্গোলিয়া, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান, উজবেকিস্তান, তুর্কমেনিস্তান
৩। ইউরোপ – হাঙ্গেরি, সুইজারল্যান্ড, কসোভো
৪। আফ্রিকা – ইথিওপিয়া, জিম্বাবুয়ে, দক্ষিণ সুদান
৫। দক্ষিণ আমেরিকা- প্যারাগুয়ে, বলিভিয়া

ছিদ্রায়িত রাষ্ট্র :

১। ২টি; যথা- ইটালি, দক্ষিণ আফ্রিকা

রাজধানীর নামঃ

১। মঙ্গোলিয়া- উলানবাটোর
২। উত্তর কোরিয়া- পিয়ংইয়ং
৩। মায়ানমার- নাইপিদো
৪। কম্বোডিয়া – নমপেন
৫। লাওস- ভিয়েনতিয়েন
৬। মালয়েশিয়া – কুয়ালালামপুর
৭। শ্রীলঙ্কা – কলম্বো
৮। লেবানন – বৈরুত
৯। সিরিয়া- দামেস্ক
১০। তুরস্ক – আঙ্কারা
১১। কাতার- দোহা
১২। জর্ডান- আম্মান

১৩। কাজাখস্তান – আস্তানা
১৪। কিরগিজস্তান – বিশকেক
১৫। তুর্কমেনিস্তান – আশখাবাদ
১৬। উজবেকিস্তান – তাসখন্দ
১৭। তাজিকিস্তান – দুশানবে
১৮। ফিনল্যান্ড – হেলসিংকি
১৯। ডেনমার্ক – কোপেনহেগেন
২০। ইউক্রেন – কিয়েভ
২১। বেলজিয়াম – ব্রাসেলস
২২। কসোভো- প্রিস্টিনা
২৩। নেদারল্যান্ড- আমস্টারডাম
২৪। পোল্যান্ড- ওয়ারস
২৫৷ এস্তোনিয়া- তাল্লিন
২৬। লাটভিয়া- রিগা
২৭। দক্ষিণ সুদান- জুবা
২৮। বুরুন্ডি- বুজুমবুরা
২৯। মাদাগাস্কার – আনতানানারিবো
৩০। উগান্ডা – কাম্পালা
৩১। গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র – কিনসাসা
৩২। সেনেগাল- ডাকার
৩৩। দক্ষিণ আফ্রিকা – কেপটাউন
৩৪। বারকিনা ফাসো- ওয়াগাডুগু
৩৫। মৌরিতানিয়া- নৌয়াকচট
৩৬। ইথিওপিয়া – আদ্দিস আবাবা
৩৭। হন্ডুরাস – তিগুচিগালপা
৩৮। চিলি- সান্টিয়াগো
৩৯। আর্জেন্টিনা – বুয়েন্স আয়ারস
৪০। পেরু- লিমা

দ্বীপ :

১। পৃথিবীর বৃহত্তম দ্বীপ – গ্রীণল্যান্ড
২। গ্রীণল্যান্ড দ্বীপটির মালিকানা – ডেনমার্ক
৩। ভৌগোলিকভাবে উত্তর আমেরিকার কিন্তু রাজনৈতিক ভাবে ইউরোপের- গ্রীণল্যান্ড
৪। পৃথিবীর সর্বাধিক দ্বীপরাষ্ট্র – ইন্দোনেশিয়া
৫। কুড়িল দ্বীপপুঞ্জ নিয়ে বিরোধ রয়েছে- রাশিয়া ও জাপান
৬। শাখালিন দ্বীপপুঞ্জ নিয়ে বিরোধ রয়েছে- রাশিয়া ও জাপান
৭। সেনকাকু নিয়ে বিরোধ রয়েছে- চীন ও জাপান
৮। স্প্রাটলি দ্বীপপুঞ্জ নিয়ে বিরোধ রয়েছে – চীন ও ভিয়েতনাম
৯। আবু মুসা দ্বীপ – ইরান ও সংযুক্ত আরব আমিরাত
১০। পেরেজিল দ্বীপ – মরক্কো ও স্পেন
১১। ফকল্যান্ড – আর্জেন্টিনা ও ব্রিটেন
১২। চীনে ‘দিয়াওয়াও’ নামে পরিচিত – সেনকাকু দ্বীপপুঞ্জ
১৩। জাফনা দ্বীপ অবস্থিত – শ্রীলঙ্কা
১৪। আফ্রিকা ও এশিয়ার মধ্যে ভূমি সেতুর কাজ করে- সিনাই উপত্যকা

হ্রদ :

১৫। আয়তনে বিশ্বের বৃহত্তম হ্রদ- কাস্পিয়ান সাগর
১৬। বিশ্বের বৃহত্তম সুপেয় পানির হ্রদ- সুপিরিয়র হ্রদ
১৭। গ্রেট লেকস কয়টি?- ৫ টি
১৮। তাঞ্জানিয়া ও উগান্ডার আন্তর্জাতিক সীমানা হিসেবে পরিচিত – ভিক্টোরিয়া হ্রদ
১৯। বিশ্বের গভীরতম হ্রদ- বৈকাল
২০। পৃথিবীর সর্বাধিক লবণাক্ত পানির হ্রদ- আসাল হ্রদ
২১। লবণ সাগরের আসল নাম- মৃত সাগর
২২। পৃথিবীর যে সাগরে মানুষ অনায়াসে গা ভাসিয়ে থাকতে পারে- মৃতসাগর/ লবণ সাগর

প্রণালি :

২৩। এশিয়া থেকে আমেরিকাকে পৃথক করেছে- বেরিং প্রণালী
২৪। ভারত হতে শ্রীলঙ্কাকে পৃথক করেছে- পক প্রণালি
২৫। পারস্য উপসাগর ও ওমান উপসাগর সংযুক্ত করেছে- হরমুজ প্রণালি
২৬। এডেন সাগর ও লোহিত সাগরকে সংযুক্ত করেছে- বাব-এল-মান্দেব
২৭। এশিয়া থেকে ইউরোপকে পৃথক করেছে- বসফরাস প্রণালি / দার্দানেলিস প্রণালি
২৮। ইউরোপ হতে আফ্রিকাকে পৃথক করেছে- জিব্রাল্টার প্রণালি
২৯। ফ্রান্স ও ব্রিটেন পৃথক করেছে- ইংলিশ চ্যানেল
৩০। ব্রজেন দাস- একজন বাঙ্গালি সাঁতারু
৩১। পৃথিবীর বৃহত্তম খাল- সুয়েজ খাল
৩২। সুয়েজ খাল অবস্থিত – মিশর
৩৩। সুয়েজ খাল চালু হয়- ১৮৬৯ সালে
৩৪। সুয়েজ খাল সংযুক্ত করেছে- ভূমধ্যসাগর ও লোহিত সাগর
৩৫। পানামা খাল সংযুক্ত করেছে- আটলান্টিক মহাসাগর ও প্রশান্ত মহাসাগর

নদী:

৩৬। পৃথিবীর দীর্ঘতম নদী- নীল নদ
৩৭। নীলনদ প্রবাহিত হয়েছে- ১১ টি
৩৮। কায়রো কোন নদীর তীরে অবস্থিত? – নীল
৩৯। পৃথিবীর প্রশস্ততম নদী- আমাজন
৪০। বিশ্বের সবচেয়ে বেশি পানি প্রবাহিত হয়- আমাজন
৪১। পৃথিবীর বৃহত্তম নদী- আমাজন
৪২। এশিয়ার দীর্ঘতম নদী- ইয়াংসিকিয়াং
৪৩। হোয়াংহো নদীর স্থপত্তিস্থল – কুনলুন পর্বত
৪৪। চীনের দুঃখ বলে পরিচিত- কুনলুন পর্বত
৪৫। ইউরোপের সবচেয়ে বড় নদী- ভলগা
৪৬। ব্ল্যাকফরেস্ট অবস্থিত – জার্মানি
৪৭। শাত-ইল-আরব হলো- ট্রাইগ্রিস ও ইউফ্রেটিস বদরী মিলিত প্রবাহ
৪৮। পৃথিবীর কোন নদীতে মাছ হয় না?- জর্ডান
৪৯। পশ্চিম তীর অবস্থিত – জর্ডান

জলপ্রপাত :

৫০। বিশ্বের উচ্চতম জলপ্রপাত – অ্যাঞ্জেলস
৫১। নায়াগ্রা জলপ্রপাত অবস্থিত – আমেরিকা-কানাডা
৫২। বিশ্বের বৃহত্তম জলপ্রপাত – ভিক্টোরিয়া

ভৌগলিক উপনাম:

৫৩। বিশ্বের রাজধানী – নিউইয়র্ক
৫৪। পৃথিবীর কসাইখানা – শিকাগো
৫৫। ভূ-স্বর্গ– কাশ্মীর
৫৬। শ্বেতহস্তীর দেশ – থাইল্যান্ড
৫৭। হাজার হ্রদের দেশ – ফিনল্যান্ড
৫৮। হাজার দ্বীপের দেশ – ইন্দোনেশিয়া
৫৯। ম্যাপল পাতার দেশ – কানাডা
৬০। নীরব খনির দেশ – বাংলাদেশ
৬১। সমুদ্রের বধূ- ব্রিটেন
৬২। সাত পাহাড়ের শহর– রোম
৬৩। সোনালী তোরণের শহর– সানফ্রান্সিসকো
৬৪। সংস্কৃতির শহর- প্যারিস
৬৫। বিগ আপেল – নিউইয়র্ক
৬৬। উত্তরের ভেনিস — স্টকহোম
৬৭। প্রাচ্যের ভেনিস- ব্যাংকক
৬৮। ইউরোপের রণক্ষেত্র— বেলজিয়াম
৬৯। পুষ্পমণ্ডিত বৃক্ষের শহর– হারারে
৭০। সাত পাহাড়ের দেশ – রোম

ভাষা:

৭১। চীন- মান্দারিন (সবচেয়ে বেশি লোক এ ভাষায় কথা বলে)
৭২। আর্জেন্টিনা, চিলি, মেক্সিকো, স্পেন- স্পেনিশ
৭৩। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, কানাডা, ঘানা, জিম্বাবুয়ে, উগান্ডা, নাইজেরিয়া- ইংরেজি
৭৪। ব্রাজিল, পর্তুগাল – পর্তুগিজ
৭৫। জার্মানি, অস্ট্রিয়া– জার্মান
৭৬। ফ্রান্স, সেনেগাল, বেলজিয়াম, কঙ্গো, মাদাগাস্কার – ফ্রেঞ্চ
৭৭। অ্যান্ডোরা, স্পেন – ক্যাটালান
৭৮। আফগানিস্তান- পশতু
৭৯। ভুটান- দোজাংখা
৮০। কেনিয়া, তানজানিয়া- সোয়াহিলি
৮১। মালদ্বীপ – দিভেহী
৮২। শ্রীলঙ্কা – সিংহলি
৮৩। ইসরায়েল – হিব্রু
৮৪। মালয়েশিয়া – মালয়
৮৫। কম্বোডিয়া – খেমার
৮৬। ঘানা- আকান

সমুদ্রবন্দরঃ

৮৭। আকাবা- জর্ডান
৮৮। বন্দর আব্বাস – ইরান
৮৯। এডেন– ইয়েমেন
৯০। হাইফা- ইসরায়েল
৯১। ডানজিগ– পোল্যান্ড
৯২। আন্টওয়ার্প- বেলজিয়াম
৯৩। পোর্ট সৈয়দ – মিশর
৯৪। ক্যাসাব্লান্কা- মরক্কো
৯৫। বেনগাজী- লিবিয়া
৯৬। উমকাসর- ইরাক
৯৭। ইসকানদারুন- তুরস্ক

মুদ্রা :

৯৮। গুলট্রাম- ভুটান
৯৯। কিয়াট- মায়ানমার
১০০। রিংগিত- মালয়েশিয়া
১০১। ইসরায়েল – শেকেল
১০২। জলোটি- পোল্যান্ড
১০৩। সেডি- ঘানা
১০৪। ডং- ভিয়েতনাম

আইনসভা :

১০৫। ইসরায়েল – নেসেট
১০৬। জাপান – ডায়েট
১০৭। আফগানিস্তান – লয়া জিরগা
১০৮। যুক্তরাষ্ট্র – কংগ্রেস
১০৯। রাশিয়া – স্টেট ডুমা
১১০। পাকিস্তান – মজলিশ
১১১। নরওয়ে – স্টরটিং
১১২। ডেনমার্ক – ফোকেটিং
১১৩। জার্মানি – বুন্টেসট্যাগ

প্রাইমারির বিগত বছরগুলোর ৫০০টি প্রশ্নোত্তর
১) ভাষার মূল উপাদান – ধ্বনি
২) আভরণ শব্দের অর্থ – অলংকার
৩) মন্ত্রের সাধন কিংবা শরীর পাতন এখানে কিংবা – বিয়োজক অব্যয়
৪) ঢাকের কাঠি বাগধারার অর্থ – তোষামুদে
৫) বাবুর্চি – তুর্কি শব্দ
৬) শুদ্ধ বানান – মূর্ধন্য
৭) চীনা শব্দ – চা, চিনি
৮) ভাষায় সর্বনাম ব্যবহারের উদ্দেশ্য – বিশেষ্যের পুনরাবৃত্তি দূর করা
৯) সন্ধির প্রধান সুবিধা – উচ্চারণে
১০) কর্মভোগ এড়ানো যায় না এখানে কর্ম অর্থ – কৃতকর্ম
১১) তুমি না বলেছিলে আগামীকাল আসবে? এখানে না – প্রশ্নবোধক অর্থে
১২) পাবক শব্দের সমার্থ – অগ্নি
১৩) মৃন্ময়ী যে উপন্যাসের নায়িকা – সমাপ্তি
১৪) তুমি যাও – অনুজ্ঞা
১৫) সঠিক যে টি – পথের দাবী ( উপন্যাস)
১৬) আত্নঘাতি বাঙালী – নীরদচন্দ্র চৌধুরীর গ্রন্থ
১৭) চতুরঙ্গ পত্রিকার সম্পাদক – হুমায়ুন কবির
১৮) রবীন্দ্রনাথের রচনা – চতুরঙ্গ
১৯) আবোল তাবোল কার – সুকুমার রায়
২০) ফোর্ট উইলিয়াম কলেজের বাংলা বিভাগের প্রধান ছিলেন – উইলিয়াম কেরি
২১) প্রত্যয়গতভাবে শুদ্ধ – উৎকর্ষতা
২২) অমিত্রাক্ষর ছন্দের বৈশিষ্ট্য – অন্তমিল থাকেনা
২৩) চাঁদ – তদ্ভব শব্দ
২৪) পুণ্যে মতি হোক এখানে পুণ্যে – বিশেষ্য
২৫) তার বয়স বেড়েছে কিন্তু বুদ্ধি বাড়েনি – যৌগিক বাক্য
২৬) আনারস, চাবি – পর্তুগিজ শব্দ
২৭) শুদ্ধ বানান – নির্নিমেষ
২৮) বাংলা ভাষায় যতি চিহ্নের প্রচলন করেন – ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর
২৯) সংশয় এর বিপরীত শব্দ – প্রত্যয়
৩০) ইহলোকে যা সামান্য নয় – আলোক সামান্য
৩১) শশী ও কুমুদ চরিত্র দুটি – পুতুল নাচের ইতিকথার
৩২) ভাষায় সাহিত্যের গাম্ভীর্য ও আভিজাত্য প্রকাশ পায় – সাধু ভাষায়
৩৩) রাত্রির সমার্থক নয় – বারিদ
৩৪) ব্রজবুলি হলো – মৈথিলি ভাষার একটি উপভাষা
৩৫) অভিধানে আগে বসবে – চাঁটি শব্দি
৩৬) গাহি সাম্যের গান, ধরণীর হাতে দিল যারা আনি ফসলের ফরমান – নজরুলের সাম্যবাদী কবিতার লাইন
৩৭) অভিনিবেশ শব্দের অর্থ – মনোযোগ
৩৮) সঠিক বাক্য – আমার কথাই প্রমাণিত হলো
৩৯) সন্ধ্যায় সূর্য অস্ত যায় – নিত্যবৃত্ত অতীত
৪০) সাধুরীতির বৈশিষ্ট্য – সর্বনাম ও ক্রিয়াপদ এক বিশেষ গঠন পদ্ধতি মেনে চলে।

১) ঢাক ঢাক গুড় গুড় বাগধারার অর্থ – গোপন রাখার প্রয়াস
২) কোনটি পরিচ্ছদ – শিমুল
৩) যৌগিক বিশোষণের উদাঃ – পন্ডিত জনোচিত উক্তি
৪) প্রত্যয়ান্ত শব্দ – পিপাসা
৫) কোন ত্রয়ীবানান শুদ্ধ – মুমূর্ষু, সংঘর্ষ, বিমর্ষ
৬) কোনটি অঙ্গ ভূষণ – মেখলা
৭) Transliteration এর পরিভাষা – প্রতিবর্ণীকরন
৮) শেক্সপীয়রের টেমিং অব দি শ্রু বাংলা অনুবাদ করেন – মুনীর চৌধুরী
৯) পদাবলীর রচয়িতা – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
১০) এক জাতীয় নয় – তনয়
১১) শামসুর রাহমানের গদ্য গন্থ – স্মৃতির শহর
১২) তুলনাজ্ঞাপক শব্দ – প্রমিত
১৩) লোকটা যে পিছনে লেগেই রয়েছে, কী বিপদ!! এখানে কী – বিরক্তি বোঝায়
১৪) বুদ্ধদেব বসু সম্পাদিত পত্রিকা – কবিতা
১৫) সমার্থক নয় – মরৎ
১৬) The window panes steamed up এর বাংলা – জানালার কাচ ঝাপসা হয়ে গেল
১৭) হাসি ও ব্যঙ্গের নজরুল কাব্য – পুবের হাওয়া
১৮) সমাস গঠিত শব্দ – নরপুঙ্গর ( দ্বন্দ্ব সমাস)
১৯) যৌবন এর বিপরীত শব্দ – জরা
২০) ছেমড়া শব্দটি – সংস্কৃত
২১) দহন কাল উপন্যাস এর জন্য বাংলা একাডেমী সাহিত্য পুরস্কার ২০১২ পদক পান – হরিশংকর
জলদাস
২২) জাফর ইকবালের প্রথম প্রকাশিত সায়েন্স ফিকশন – কপোট্রনিক সুখ দুঃখ ( ১৯৭৬)
২৩) চাচা কাহিনীর লেখক – সৈয়দ মুজতবা আলী
২৪) সোনালী কাবিন কাব্যের রচয়িতা – আল মাহমুদ
২৫) তোমাকে পাওয়ার জন্য হে স্বাধীনতা পংক্তিটির রচনা করেন – শামসুর রাহমান
২৬) শুব্দ বানান – মুমূর্ষু
২৭) যে নারী প্রিয় কথা বলে – প্রিয়ংবদা
২৮) দশানন কোন সমাস – বহুব্রীহি
২৯) Executive – এর পরিভাষা – নির্বাহী
৩০) পর্যালোচনা এর সন্ধি বিচ্ছেদ – পরি + আলোচনা
৩১) মেধাবী শব্দের প্রকৃতি প্রত্যয় – মেধা + বিণ
৩২) গোঁফ খেজুরে অর্থ – নিতান্ত অলস
৩৩) অন্ধজনে দেহ আলো এখানে অন্ধজনে কারক বিভক্তি – সম্প্রদানে ৭মী
৩৪) পৃথিবী শব্দের প্রতিশব্দ নয় – বারি
৩৫) কচ্ছপের কামড় বাগধারার অর্থ – নাছোড় বান্দা
৩৬) লাঠা লাঠি – বহুব্রীহি সমাস
৩৭) ভুল প্রতিশব্দ – ইচ্ছা- পরশ্রীকাতরতা
৩৮) ঠাকুরমার ঝুলি কি জাতীয় সংকলন – রুপকথা
৩৯) সৌম্য এর বিপরীত – উগ্র
৪০) জীবন্মৃত এর ব্যাসবাক্য – জীবিত থেকেও যে মৃত

১) আপদ এর বিপরীত শব্দ – সম্পদ
২) ভূত এর বিপরীত শব্দ – ভবিষ্যৎ
৩) শান্ত এর বিপরীত শব্দ – অনন্ত
৪) কৃতঘ্ন এর বিপরীত শব্দ – কৃতজ্ঞ
৫) অশুদ্ধ বাক্য – সর্বদা পরিস্কৃত থাকিবে
৬) শুদ্ধ বাক্য – তুমি কি ঢাকা যাবে??
৭) শুদ্ধ বাক্য – রহিমা পাগল হয়ে গেছে
৮) শুদ্ধ বাক্য – বুনো ওল, বাঘা তেতুল
৯) বায়ু শব্দের সমার্থক শব্দ – বাত
১০) চাঁদ এর সমার্থক শব্দ – নিশাপতি
১১) সমুদ্র শব্দের সমার্থক – পাথার
১২) রাজা শব্দের সমার্থক – নরেন্দ্র
১৩) জল শব্দের সমার্থক শব্দ – অম্বু
১৪) কৌমুদির প্রতিশব্দ নয় – নলিনী
১৫) অরুন এর প্রতিশব্দ নয় – বিজলী
১৬) নিকেতন এর প্রতিশব্দ নয় – তোয়
১৭) রামা এর প্রতিশব্দ নয় – সুত
১৮) শিক্ষককে শ্রদ্ধা কর। এখানে শিক্ষককে – সম্প্রদান ৭ মী বিভক্তি
১৯) পৌরসভা কোন সমাস – ৬ষ্ঠী তৎপুরুষ সমাস
২০) অর্ক এর প্রতিশব্দ নয় – অনিল
২১) কোনটি সঠিক – আপাদমস্তক
২২) দশানন কোন সমাস – বহুব্রীহি সমাস
২৩) ভূত এর বিপরীত শব্দ – ভবিষ্যত
২৪) রক্ত করবী – নাটক
২৫) বসুমতী শব্দের সমার্থক – ধরিত্রী
২৬) পরার্থ শব্দের অর্থ – পরোপকার
২৭) যে নারী প্রিয় কথা বলে – প্রিয়ংবদা
২৮) সাত সাগরের মাঝি কাব্য – ফররুখ আহমেদ এর
২৯) বৃষ্টি এর সন্ধি বিচ্ছেদ – বৃষ+তি
৩০) রবীন্দ্রনাথের রচনা নয় – বিষের বাঁশী
৩১) গুরুজনে ভক্তিকর এখানে গুরুজনে – কর্মকারক
৩২) বনফুল যার ছদ্মনাম – বলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায়
৩৩) surgeon এর পরিভাষা – শল্য চিকিৎসক
৩৪) হে বঙ্গ ভান্ডারে তব বিবিধ রতন কার কবিতার লাইন – মাইকেল মধুসূদন দত্ত
৩৫) ব্যথার দান – কাজী নজরুল রচিত গল্প
৩৬) সংশপ্তক কার – শহীদুল্লাহ কায়সার
৩৭) পর্যালোচনার সন্ধি বিচ্ছেদ – পরি + আলোচনা
৩৮) অম্বর শব্দের অর্থ – আকাশ
৩৯) নিরানব্বইয়ের ধাক্কা – সঞ্চয়ের প্রবৃত্তি
৪০) শুদ্ধ বানান – পিপীলিকা
৪১) প্রবচন – পুরোনো চাল ভাতে বাড়ে
৪২) দারিদ্রতা শব্দটি অশুদ্ধ – প্রত্যয়জনিত কারনে।

১) কোন বানানটি সঠিক – ভদ্রোচিত
২) উনপাঁজুরে শব্দরে অর্থ – দুর্বল
৩) উত্তম পুরুষের উদাঃ – আমি
৪) দিনের আলো ও সন্ধ্যার আঁধারে মিলন – গোধূলী
৫) যা দীপ্তি পাচ্ছে – দেদীপ্যমান
৬) আকাশ শব্দের সমার্থক নয় – হিমাংশু
৭) দেশী শব্দ – চাল, চুলা
৮) সন্ধি শব্দের বিপরীত শব্দ – বিয়োগ
৯) কোনটির লিঙ্গান্তর হয় না – কবিরাজ
১০) সকল সভ্যগণ এখানে উপস্থিত ছিলেন এর শুব্দ রুপ – সভ্যগণ এখানে উপস্থিত ছিলেন
১১) বাঁধ্ + অন = বাঁধন কোন শব্দ – কৃদন্ত শব্দ
১২) ধাতু কয় প্রকার – ৩ প্রকার
১৩) রচনাটির উৎকর্ষতা অনস্বীকার্য এর শুব্দ রুপ – রচনাটির উৎকর্ষ অনস্বীকার্য
১৪) দশে মিলে করি কাজ এখানে দশে – কর্তৃকারকে ৭মী বিভক্তি
১৫) স্বরসংগতির উদাহরন – দেশী> দিশী
১৬) পাতায় পাতায় পড়ে নিশির শিশির এখানে পাতায় পাতায় – অধিকরণে ৭মী বিভক্তি
১৭) যে বহু বিষয় জানে – বহুজ্ঞ
১৮) যৌগিক স্বরধ্বনি – ঐ
১৯) সূর্য এর প্রতিশব্দ নয় – হিমকর
২০) কবর কবিতাটি কোন কাব্যের – রাখালী
২১) আহসান হাবীব এর কাব্যগ্রন্থ – আশার বসতি, ছায়াহরিণ, সারাদুপুর
২২) যাহা দিলাম তাহা উজাড় করিয়া দিলাম। – রবীন্দ্রনাথের হৈমন্তী গল্পের উক্তি
২৩) হাজার বছর ধরে রচনা করেন – জহির রায়হান
২৪) এখানে তোর দাদির কবর ডালিম গাছের তলে, তিরিশ বছর ভিজায়ে রেখেছে দুই নয়নের জলে।
এর পরের লাইন — এতটুকু তারে ঘরে এনেছিনু সোনার মত মুখ
২৫) তপুকে আবার ফিরে পাবো, একথা ভুলেও ভাবিনি কোন দিন — জহির রায়হানের একুশের গল্পের
উক্তি
২৬) রবীন্দ্রনাথ নোবেল পান – ১৯১৩ সালে
২৭) রবীন্দ্রনাথের রচনা নয় – মৃত্যু ক্ষুধা
২৮) ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের পারিবারিক পদবি – বন্দোপাধ্যায়
২৯) সুকান্ত ভট্টাচার্য মৃত্যুবরন করেন – ২১ বছরে
৩০) রবীন্দ্রনাথের জন্ম – ২৫ বৈশাখ,১২৬৮ বাংলা
৩১) জীবন থেকে নেয়া, স্টপ জেনোসাইড, লেট দেয়ার বি লাইট – জহির রায়হানের রচনা
৩২) মহাশশান মহাকাব্য – কায়কোবাদ রচনা করেন
৩৩) সনেট এর পংক্তি – ১৪ টি
৩৪) বাংলা কাব্যে অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক – মাইকেল মধুসূদন দত্ত
৩৫) পদ্মা নদীর মাঝি যার লেখা – মানিক বন্দোপাধ্যায়
৩৬) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কাব্য গ্রন্থ নয় – নৌকাডুবি
৩৭) রাজবন্দীর জবানবন্দী কার – কাজী নজরুল ইসলাম
৩৮) গগনে গরজে মেঘ, ঘন বরষা পরের লাইন – কূলে একা বসে আছি, নাহি ভরসা
৩৯) যা অধ্যয়ন করা হয়েছে – অধীত
৪০) যিনি বক্তৃতা দানে পটু – বাগ্মী

১) কষ্টে অতিক্রম করা যায় যা – দুরাতিক্রম্য
২) The rose is a fragrant flower এর বাংলা – গোলাপ সুগন্ধি ফুল
৩) পত্রের গর্ভাংশ বলে – মূল বিষয়কে
৪) কে জানে দেশে সুদিন আসবে কিনা। বাক্যটি প্রকার করে – অনশ্চিয়তা
৫) প্রদীপ নিভে গেল। বাক্যটি – সাধারণ অতীত কালের
৬) আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারি গানটির রচয়িতা – আঃ গাফফার চৌধুরী
৭) সংশয় এর বিপরীত – প্রত্যয়
৮) আরোহন এর বিপরীত – অবরোহণ
৯) সূর্য এর প্রতিশব্দ – আদিত্য
১০) জসীমউদদীন রচিত গ্রন্থ – সোজন বাদিয়ার ঘাট
১১) শুদ্ধ বাক্য – আজ কাল বানানের ব্যাপারে সব ছাত্রই অমনোযোগী
১২) শুদ্ধ বানান – আলস্য, ঘূর্ণায়মান
১৩) প্রতিশব্দ নয় – আগুন – কর, আনন্দ- দিপ্তী, বন- সরোজ
১৪) যে সত্য কথা বলে, তাকে সকলে বিশ্বাস করে এর সরল বাক্য – সত্যবাদীকে সকলে বিশ্বাস করে
১৫) সঠিক অর্থ সমূহ – হাতের পাঁচ- শেষ সম্বল, চাঁদের হাট- প্রিয়জন সমাগম, কাক নিদ্রা- অগভীর
নিদ্রা, শিরে সংক্রান্তি – আসন্ন বিপদ, একচোখা – পক্ষপাত দুষ্টু
১৬) দুর্দিনের যাত্রী গ্রন্থের রচয়িতা – কাজী নজরুল ইসলাম
১৭) বিদ্রোহী কবিতাটি কোন কাব্যের – অগ্নিবীণা
১৮) আবার আসিব ফিরে ধান সিঁড়িটির তীরে কোন কবির কথা – জীবনন্দ দাশ
১৯) মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ কবি – ভারত চন্দ্র
২০) হরতাল – গুজরাটি শব্দ
২১) জাতীয় স্মৃতি সৌধের স্থপতি – সৈয়দ মঈনুল হোসেন
২২) সোজন বাদিয়ার ঘাট এর রচয়িতা – জসীম উদদীন
২৩) শরৎচন্দ্রের রচনা নয় – চোখের বালি
২৪) শুদ্ধ বানান – স্বায়ত্তশাসন
২৫) অপপ্রয়োগের দৃষ্টান্ত – একত্রিত
২৬) শকট শব্দের অর্থ – মাছ
২৭) শেষ লেখা কি জাতীয় রচনা – কাব্য
২৮) যে বিষয়ে কোন বিবাদ নেই – অবিসংবাদী
২৯) কাজলা দিদি কি – যতীন্দ্রমোহন বাগচী রচিত কবিতা
৩০) নীল দর্পন নাটক প্রকাশিত হয় – ঢাকা থেকে
৩১) মেঘনাদবধ কাব্য প্রকাশিত হয় – ১৮৬১ সালে
৩২) পদ্মাবতী কার রচনা – আলাওল
৩৩) ভানুসিংহ যার ছদ্মনাম – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
৩৪) রবীন্দ্রনাথ নোবেল পান – ১৯১৩ সালে
৩৫) বাংলা উপসর্গ – অনা
৩৬) চন্ডীদাস যে যুগের কবি – মধ্যযুগ
৩৭) কলা দেখানো অর্থ – ফাঁকি দেয়া
৩৮) বেগম রোকেয়ার রচনা নয় – পদ্মনী
৩৯) প্রথম বাংলা পত্রিকা – দিকদর্শন
৪০) হাত চালাও মানে – তাড়াতাড়ি করা
৪১) কোন রচনার জন্য নজরুলের জেল হয় – আনন্দময়ীর আগমনে
৪২) বঙ্কিম এর বিপরীত –ঋজু

১) অপোগন্ড শব্দের অর্থ – অপ্রাপ্তবয়স্ক, অপদার্থ
২) বাবা – তুর্কি শব্দ
৩) বাজারে কাটা অর্থ – বিক্রি হওয়া
৪) বীরবল ছদ্মনাম – প্রমথ চৌধুরী
৫) সওগাত শব্দের অর্থ – উপহার
৬) ব্যাঘাত এর বিশেষণ – ব্যাহত
৭) ফুলদানি শব্দের দানি- র ভাষিক পরিচয়, – শব্দপ্রত্যয়
৮) বাংলা ভাষায় সনেট প্রবর্তন করেন – মধুসূদন দত্ত
৯) বিলাসী গল্পটি – শরৎচন্দ্রের
১০) সিডর – সিংহলি ভাষার শব্দ
১১) দোহারা শব্দের অর্থ – মোটাও নয়, রোগাও নয়
১২) অপপ্রয়োগের দৃষ্টান্ত – নির্ভরশীলতা
১৩) Barren শব্দরে অর্থ – ঊষর
১৪) অশুদ্ধ বানান – মরুদ্যান, আয়ত্ব
১৫) জঙ্গম শব্দের অর্থ – গতিশীল
১৬) পাঞ্জেরী কবিতাটি – ফররুখ আহমেদ এর
১৭) ক্ষুণ্নিবৃত্তি এর সন্ধিবিচ্ছেদ – ক্ষুধ+ নিবৃত্তি
১৮) বায়স শব্দের অর্থ – কাক
১৯) নজরুল ইসলাম সম্পাদিত পত্রিকা – লাঙ্গল
২০) কবর নাকটটি – মুনীর চৌধুরীর
২১) বাংলা উপন্যাসের জনক – বঙ্কিম চন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
২২) সন্ধি ব্যাকরণের আলোচিত হয় – ধ্বনিতত্ত্বে
২৩) রাবণের চিতা বাগধারার অর্থ – চির অশান্তি
২৪) শিখা পত্রিকা কোন সংগঠনের – মুসলিম সাহিত্য সমাজ
২৫) কমলা কান্তের দপ্তর যে শ্রেণীর রচনা – প্রবন্ধ
২৬) বিজ্ঞান শব্দের বি উপসর্গের অর্থ – বিশেষ
২৭) আমার সন্তার যেন থাকে দুধে ভাতে এই প্রার্থনা – ঈশ্বরী পাটনীর
২৮) দশে মিলে করি কাজ বাক্যে দশে – কর্তৃকারকে ৭মী বিভক্তি
২৯) নজরুল কারাবরণ করেন – আনন্দময়ীর আগমনে কবিদার জন্য
৩০) বেগম রোকেয়ার রচনা – মতিচুর, পদ্মরাগ, অবরোধবাসিনী
৩১) স্বাধীনতা হীনতায় কে বাঁচিতে চায় কার কথা – রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়
৩২) বাংলায় টি.এস এলিয়টের কবিতা প্রথম অনুবাদ করেন – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
৩৩) এ সাবানে কাপড় কাচা চলবে না এখানে সাবানে – করনে ৭মী
৩৪) জানালা শব্দটি – ফারসি শব্দ
৩৫) বাংলা ভাষার প্রথম সাময়িকী – দিক দর্শন
৩৬) ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহর মতে বাংলা ভাষার উৎপত্তি – গৌড়ীয় প্রাকৃত থেকে
৩৭) বসন্তকুমারী নাটকের রচয়িতা – মীর মশাররফ হোসেন
৩৮) বাংলা সাহিত্যে ছন্দের যাদুকর – সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত
৩৯) পড়েছি মোগলের সাথে খানা খেতে হবে এক সাথে। এর অর্থ – বিপদে পড়ে কাজ করা।

১) শুদ্ধ বানান – মুহুর্মুহু
২) যে পুরুষ বাচক শব্দের দুটি স্ত্রী বাচক শব্দ আছে – ভাই
৩) টীকা ভাষ্য বাগধারাটির অর্থ – দীর্ঘ আলোচনা
৪) পাথরে পাঁচ কিল বাগধারার অর্থ – প্রবল সৌভাগ্য
৫) বহুব্রীহি সমাস – দশানন
৬) পানির সমার্থক শব্দ – উদক
৭) কোথাও উন্নত কোথাও অবনত এককথায় – বন্ধুর
৮) যা লাফিয়ে চলে – প্লবক
৯) বিপদে মোরে রক্ষাকর এ নহে মোর প্রার্থনা – সরল বাক্য
১০) তার বয়স বাড়লেও বুদ্ধি বাড়েনি – সরল বাক্য
১১) মঙ্গল কাব্যের কয়টি অংশ থাকে – ৫টি
১২) মধুসূদন দত্ত রচিত পত্রকাব্য – বীরাঙ্গনা
১৩) রবীন্দ্রনাথ সুভাষ চন্দ্রকে উৎসর্গ করেন – তাসের দেশ
১৪) ঢাকা থেকে প্রকাশিত প্রথম গ্রন্থ – নীলদর্পন
১৫) চর্যাপদের পদগুলি টীকার মাধ্যমে ব্যাখা করেন – মুনি দত্ত
১৬) জহির রায়হানের রচনা – আরেক ফাল্গুন
১৭) নজরুল রচিত নাটক – ঝিলিমিলি
১৮) মুনির চৌধুরী রচিত কবর একটি – নাটক
১৯) পঞ্চতন্ত্র রচনা করেন – সৈয়দ মুজতবা আলী
২০) শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য রচনা করেন – বড়ু চন্ডীদাস
২১) সমুদ্র শব্দের সমার্থক – পাথার
২২) ঐহিক এর বিপরীত শব্দ – পারত্রিক
২৩) নাটিকা কোন অর্থে স্ত্রীবাচক শব্দ – ক্ষুদ্রার্থে
২৪) দ্বিগু সমাস – চৌরাস্তা
২৫) যার চক্ষুলজ্জা নাই – চশমখোর
২৬) যা অবশ্যই ঘটবে – অবশ্যম্ভাবী
২৭) শুদ্ধ বানান – স্বায়ত্তশাসন
২৮) শুদ্ধ বানান – অগ্নিবীণা
২৯) ধর্মের ষাঁড় বাগধারার অর্থ – স্বার্থপর
৩০) একচোখা – পক্ষপাত দুষ্টু
৩১) বাংলায় স্বরবর্ণ -১১ টি
৩২) বাংলাদেশের রণসঙ্গীতের রচয়িতা – নজরুল ইসলাম
৩৩) বিষাদসিন্ধু যাঁর রচনা – মীর মশাররফ হোসেন
৩৪) চর্যাপদের কবির সংখ্যা – ২৩ জন
৩৫)সাহিত্যে যুগ সন্ধিক্ষণের কবি – ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্ত
৩৬) চর্যাপদ আবিষ্কার করেন – হরপ্রসাদ শাস্ত্রী
৩৭) মধ্যযুগের কাব্যের একটি ধারা – মঙ্গল কাব্য
৩৮) মাত্রাহীন বর্ণ – ১০টি
৩৯) রোহিণী চরিত্রটি – কৃষ্ণকান্তের উইল উপন্যাসের
৪০) আমার সোনার বাংলা কবিতার প্রথম – ১০ লাইন জাতীয় সঙ্গীত
৪১) ষাট বছর পূর্ণ হওয়ার উৎসব – হীরক জয়ন্তী
৪২) ভুল সন্ধি বিচ্ছেদ – দু+ লোক= দ্যুলোক
৪৩) বাবা শব্দটি – তুর্কি
৪৪) হাসি দিয়ে ঘরটিকে ভরিয়ে রাখত সে। এখানে – দিয়ে হলো – অনুসর্গ
৪৫) বগুড়ার চিনিপাতা দই সুস্বাদু। বাক্যটির চিনিপাতা – করণ কারক
৪৬) সংবাদপত্র – মধ্যপদলোপী কর্মধারয় সমাস
৪৭) ভানুমতির খেল মানে – ভেলকিবাজি
৪৮) সকল ছাত্ররাই যথাসময়ে উপস্থিত হয়েছে – বচনের ভুল
৪৯) বাংলা গদ্যরীতির জনক – বিদ্যাসাগর
৫০) ছায়া হরিন যাঁর রচনা – আহসান হাবীব
৫১) সুসময়ের বন্ধু – বসন্তের কোকিল
৫২) সমুদ্র শব্দের সমার্থক নয় – অদ্রি
৫৩) অশুদ্ধ বানান – ভূল
৫৪) খদ্দর -গুজরাটি শব্দ
৫৫) সঠিক ণ এর ব্যবহার হয়েছে – তৃষ্ণা শব্দে
৫৬) জাতি+ অভিমান – জাত্যভিমান
৫৭) কোনটি প্রবন্ধ – কালান্তর
৫৮) ক্ষুদ্র অর্থে উপ ক্যবহৃত হয়েছে – উপসাগর শব্দে
৫৯) কন্যার সমার্থক শব্দ নয় – সহোদরা
৬০) বাহুল্যদোষে দুষ্টু শব্দটি – অধীনস্থ

পরীক্ষার জন্য ৪০০ টি বাংলা গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন

#এখান থেকে অনেক mcqকমন পাবেন।তাই শেয়ার করে টাইমলাইনে রেখে দিন পোস্টটি।
বাংলা
# বাংলা ভাষার তিনটি মৌলিক অংশ রয়েছে। এগুলো হল ?
উঃ ধ্বনি,শব্দ,বাক্য
# “গরল” শব্দের বিপরীত শব্দ কি ?
উঃ অমৃত
# “এ এক বিরাট সত্য” এখানে সত্য কোন পদ রূপে ব্যবহৃত হয়েছে ?
উঃ বিশেষ্য
#“ অচেনা” কোন সমাস ?
উঃ তৎপুরুষ
#“গাড়ী ষ্টেশন ছাড়ে”। এখানে ষ্টেশন কোন কারকে কোন বিভক্তি ?
উঃ অপাদান কারকে শূন্য
# কবি কাজী নজরুল ইসলামকে ভারতের নিম্নোক্ত জাতীয় পদক প্রদান করা হয়?
উঃ পদ্মভূষণ
# “মাটির ময়না” চলচ্চিত্রের নির্মাতা কে?
উঃ তারেক মাসুদ
# লিঙ্গান্তর হয় না। এমন শব্দ কোনটি ?
উঃ কবিরাজ
# নির্ভুল বানান কোনটি ?
উঃ মুহুর্মুহু
# বাংলা সাহিত্যের প্রথম নারী কবি কে ?
উঃ চন্দ্রাবতী
# ওমর খৈয়াম কোন দেশের কবি ?
উঃ কোনটিই নয়।
# চেটে খাওয়ার যোগ্য?
উঃ লেহ্য
# সন্ধি বিচ্ছেদ পুরস্কার
উ: পুরঃ+কার # চোখের বালি এর অর্থ
উ: শত্রু # কৃতঘ্ন অর্থ
উ: যে উপকারীর অপকার করে
# চক্ষু দ্বারা গৃহীত
উ: চাক্ষুষ
# মোদের গরব,মোদের আশা,আমরি বাংলা ভাষা কার উক্তি –
উ: কোনটি নয় (অতুল প্রসাদ সেন সঠিক উত্তর)
# বাংলা নারী জাগরণের পথিকৃৎ বেগম রোকেয়ার জন্মস্থান
উ: রংপুর
# যা স্থায়ী নয়
উ: অস্থায়ী
# আমানত অর্থ
উ: গচ্ছিত।
# খেচর শব্দের অর্থ কী?
উ: পাখি
# প্রথিতযশা শব্দের অর্থ কী?
উ: খ্যাতনামা
# বাগধারার অর্থ নির্ণয় করুন: ‘ধামাধারা’
উ: চাটুকারিতা
# ‘আদ্যোপান্ত’ শব্দের অর্থ কী?
উ: আগাগোড়া
# শুদ্ধ বানান কোনটি?
উ: মাধ্যাকর্ষণ
# দুহিতা শব্দের অর্থ কী?
উ: কন্যা
# সমীরণ শব্দের অর্থ কী?
উ: বাতাস
# প্রসন্ন এর বিপরীতার্থক শব্দ কোনটি?
উ: বিষণ্ন
# অন্তরঙ্গ-এর বিপরীতার্থক শব্দ কোনটি?
উ: বহিরঙ্গ
# যিনি বিদ্যা লাভ করিয়াছেন
উ: কৃতবিদ্যা
# সমুদ্র হতে হিমালয় পর্যন্ত বাক্যাংশের অংশ হিসেবে কোনটি সঠিক?
উ: হিমালয় পর্যন্ত
# ‘বিড়ালের আড়াই পা’ বাগধারাটির অর্থ কি?
উ: বেহায়াপনা
# যে যে পদে সমাস হয় তাদের প্রত্যেকটিকে কি পদ বলে?
উ: সমস্যমান পদ
# ‘সূর্য দীঘল বাড়ী’ কোন ধরনের রচনা?
উ: উপন্যাস
# কোনটি সঠিক সন্ধি বিচ্ছেদ?
উ: সম্+চয়=সঞ্চয়
# ‘কোথায় থাকা হয়’ এটি কোন বাচ্যের উদাহরণ?
উ: ভাববাচ্য
# নিশীথ রাতে বাজছে বাঁশি এখানে নিশীথ কোন পদ?
উ: বিশেষণ
1. ‘দিন ও রাত্রির সন্ধিক্ষণ’ – বাক্য সংকোচনে বলা যায়ঃ
পূর্বাহ্ন///মধ্যাহ্ন///সন্ধ্যা///Ans: গোধূলি
২. সঠিক সন্ধি বিচ্ছেদটি কোনটি?
পত+অঞ্জলি=পতঞ্জলি///অন্তঃ+লিন=অন্তর্লীন///Ans:ষট+আনন=ষড়ানন///
তথা+এবত=তথৈবত
৩. ‘কেরানী’ শব্দটি কোন ভাষা থেকে এসেছে?
তুর্কী///Ans:পর্তুগিজ///ওলন্দাজ///ফারসি
৪. ‘কি বললে, আমি পাগল_______’ শূন্যস্থানে বসবে?
প্রশ্নবোধক চিহ্ন///Ans: বিস্ময় চিহ্ন///দাঁড়ি///ড্যাশ
৫. ‘আজকে তোমায় দেখতে এলাম জগৎ আলো নূরজাহান’ – ‘আজকে’ শব্দটির কারক ও বিভক্তি কোনটি?
Ans: অধিকরণে ২য়া///অপাধানে ২য়া///করণে ৭মী///কর্মে ৫ম
৬. ‘অসুখ’ কোন সমাস?
কর্মধারয়///তৎপুরুষ///অব্যয়ীভাব///Ans: বহুব্রীহি
৭. ‘বুড়ো শালিকের ঘাড়ে রোঁ’ প্রবচনটি বোঝায়?
কষ্টের উপর আরো কষ্ট///দুরারোগ্য ব্যাধি///Ans:বুড়োর ভীমরতি///বুড়োর যৌবনপ্রাপ্তি ৮. পুত্রের নিকট মাতার পত্রের সম্ভোধন কোনটি হবে?
পাকজনাবেষু///শ্রদ্ধাস্পদ///পাকজনাব///
Ans:স্নেহাসম্পদ
৯. কোন কবিতা রচনার কারনে কাজী নজরুল ইসলামের কারাদণ্ড হয়েছিল?
বিদ্রোহী///অগ্রপথিক///কান্ডারী হুশিয়ার///Ans: আনদন্দময়ীর আগমনে
১০. ‘সারেং বৌ’ বইটির লেখক কে?
সৈয়দ মুজতবা আলী///মুনীর চৌধুরী///Ans: শহীদুল্লাহ কায়সার///শওকত ওসমান
১১. ‘রাত ও ক্ষীণ’ শব্দ দু’টির বিকল্প শব্দঃ
যামিনী, আত্মা///Ans:বিভাবরী, শীর্ণ///নিশীথ, হৃদয়///রজনী, অনুগ্রহ
১২. বাংলা নববর্ষ ‘পহেলা বৈশাখ’ চালু করেছিলেন-
ইলিয়াস শাহ্///Ans:আকবর///বিজয় সেন///লক্ষণ সেন
১৩. ‘শর্বরী’ কথাটির অর্থ?
Ans:রাত///শিকারী///চাঁদ///আলোক বর্তিকা
১৪. ‘পাথরে পাঁচ কিল’ বাগধারাটির অর্থ-
সদালাপ///অর্থহীন কথা///সংক্ষিপ্ত আলোচনা///Ans:সৌভাগ্য
১৫. None but a fool is always right.- বাক্যটির যথাযথ বঙ্গানুবাদঃ
কেউ না কিন্তু বোকাই ঠিক///বোকাকে ঠিক ভাবলেই ভুল///বোকার স্বর্গে বাস///Ans:ভুল মানুষেরই হয়
১৬. শুদ্ধ বানানগুচ্ছ কোনটি?
দুরাকাঙ্খা, বাল্মীকী, মূর্হুমুহু///দুর্ভাবনা, মিথস্ক্রিয়া, ব্যভিচার///Ans:ত্রিভুজ, প্রনয়ণ, বিমর্ষ///শিহরণ, মিথস্ক্রিয়া, ব্যভিচার
১৭. সাহিত্য সম্রাট হিসাবে কাকে অভিহিত করা হয়?
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর///ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর///Ans:বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপধ্যায়///বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়
১৮. ‘বনফুল’ কার ছদ্মনাম?
প্রমথ চৌধুরী///Ans:বলাইচাঁদ মুখোপধ্যায়///
যতীনমোহন বাগচী///মোহিতলাল
১৯. নিচের কোনটি মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস?
সংশপ্তক///ক্রীতদাসের হাসি///
চিলেকোঠার সেপাই///Ans:একটি কালো মেয়ের কথা
২০. কোন বাগধারাটির অর্থ ভিন্ন?
মণিকাঞ্চন যোগ///সোনায় সোহাগা///
Ans:আদায়- কাঁচকলায়///আমদুধে
২৬। চর্যাপদ কোথা থেকে আবিষ্কার করা হয়?
উ: নেপাল
২৭। খনার বচন কি সংক্রান্ত?
উ: কৃষি
২৮। ‘ব্রজবুলি’ একটি-
উ: ভাষা
২৯। ‘মার্সিয়া’ শব্দের উৎস ভাষা-
উ: আরবি
৩০। কোন গ্রন্থটি আলাওল রচিত?
উ: তোহফা
৩১। বত্রিশ সিংহাসন-এর রচয়িতা কে?
উ: মৃত্যুঞ্জয় বিদ্যালঙ্কার
৩২। বাংলা সাহিত্যে চলিত ভাষায় রচিত প্রথম গ্রন্থ-
উ: বীরবলের হালখাতা
৩৩। পরশুরাম কার ছদ্মনাম?
উ: রাজশেখর বসু।
৩৪। বাংলা কাব্যে ‘ভোরের পাখি’ বলা হয়-
উ: বিহারীলাল চক্রবর্তী
৩৫। ‘তত্ত্ববোধিনী’ পত্রিকার সম্পাদক কে ছিলেন-
উ: অক্ষয়কুমার দত্ত
৩৬। কোনটি জসীমউদদীনের কাব্য নয়?
উ: মানসী
৩৭। কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য কত বছর বয়সে মারা যান?
উ: ২১
৩৮। কোন কাব্যগ্রন্থের জন্য রবীন্দ্রনাথ নোবেল পুরস্কার লাভ করেন?
উ: গীতাঞ্জলি
৩৯। বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক উপন্যাস কোনটি?
উ: দুর্গেশনন্দিনী
৪০। কোনটি কাজী নজরুল ইসলামের রচনা?
উ: রুদ্রমঙ্গল
৪১। শুদ্ধ বানান কোনটি?
উ: মূর্ধন্য
৪২। কোনটি নাসিক্য ধ্বনি?
উ: ম
৪৩। ণত্ব ও ষত্ব বিধান ব্যাকরণের কোন অংশে আলোচিত হয়?
উ: ধ্বনিতত্ত্ব
৪৪। কোনটি সঠিক?
উ: চলাকালে
৪৫। ‘মনীসা’ শব্দের সন্ধি বিচ্ছেদ হল-
উ: মনস+ঈষা
৪৬। দোসরা তারিখ জ্ঞাপক শব্দটি কোন ভাষা থেকে এসেছে-
উ: হিন্দি
৪৭। সচিব কোন ধরনের শব্দ?
উ: পারিভাষিক

৪৮। সর্বভুক শব্দের অর্থ কি?
উ: আগুন
৪৯। ‘নিদাখ’ শব্দে ‘নি’ উপসর্গটি কী অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে?
উ:
৫০। ‘গিন্নী’ কোন শ্রেণির শব্দ?
উ: অর্ধ-তৎসম শব্দ
১. বাবা শব্দটি কোন ভাষা থেকে এসেছে?
ক. তুর্কী খ. ফারসী গ. উর্দূ ঘ. খাঁটি বাংলা
উ: তুর্কী
২. ‘তামার বিষ’ বাগধারার প্রকৃত অর্থ কী?
ক. নির্দয় খ. অর্থের কুপ্রভাব গ. তামা থেকে উৎপন্ন বিষ ঘ. ভীষণ বিষাক্ত
উ: অর্থের কুপ্রভাব
৩. ‘শেষের কবিতা’ কী ধরনের গ্রন্থ?
ক. কাব্য খ. উপন্যাস গ. নাটক ঘ. প্রহসন
উ: উপন্যাস
৪. ‘তটিনী’ এর সমার্থক শব্দ কোনটি?
ক. জলধি খ. নদী গ. সলিল ঘ. আকাশ
উ: নদী
৫. ‘লাভ করার ইচ্ছা’ এক কথায়-
ক. লোভ খ. লিপ্সা গ. লোভী ঘ. বুভুক্ষা
উ: লিপ্সা
# ষাট বছর পূর্ণ হওয়ার উৎসবকে এককথায় বলে:
হীরক জয়ন্তী
# কোন সন্ধি বিচ্ছেদটি ভুল?
দু+লোক=দ্যুলোক
# বাবা শব্দটি কোন ভাষা থেকে এসেছে?
তুর্কী
# কোন ভাষায় সাহিত্যের আভিজাত্য প্রকাশ পায়?
সাধু ভাষায়
# ‘বগুড়ার চিনিপাতা দই সুস্বাদু’-বাক্যটির চিনিপাতা কোন কারক?
করণ
# ‘ভানুমতির খেল’ প্রবচনটি বোঝায়-
ভেলকিবাজি
# সঠিক বাক্য কোনটি?
আমার কথা প্রমাণ হলো।
# অপমান শব্দের অপ উপসর্গটি কোন অর্থে ব্যবহৃত?
বিপরীত।
# ছায়া হরিণ কার গ্রন্থ:
আহসান হাবীব
# খিড়কি শব্দের বিপরীতার্থক শব্দ-
সিংহদ্বার
# ছেলে তো নয় যেন ননীর পুতুল- এখানে ‘যেন’
অব্যয়
# পুলিন’ শব্দের সমার্থক শব্দ কোনটি?
কূল
# গাছ পাথর বাগধারাটির অর্থ-
হিসাব-নিকাশ
# Bad workman quarrels with his tools- বাক্যটির যথাযথ বঙ্গানুবাদ:
নাচতে না জানলে উঠান বাঁকা
# কোন বানানটি শুদ্ধ?
স্বায়ত্তশাসন
# শিল্পসম্মত বাংলার গদ্যরীতির জনক হিসাবে খ্যাত সাহিত্যিকের নাম:
প্রমথ চৌধুরী
# মহাকবি নন-
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
# বাংলা ভাষায় ব্যঞ্জনবর্ণ কয়টি?
৩৯টি
# বাগধারা হিসাবে প্রয়োগ করা হয় কোন শব্দটি?
চোখের বালি
১. ‘যিনি অনেক দেখেছেন’ এক কথায় বলে-
উ: ভূয়োদর্শী
২. শুদ্ধ বানান কোনটি?
উ: মনঃকষ্ট
৩. ‘খিড়কি’ শব্দের বিপরীতার্থক কোনটি?
উ: সিংহদ্বার
৪. ‘ছেলে তো নয় যেন ননীর পুতুল’-এখানে ‘যেন’-
উ: অব্যয়
৫. ‘পুলিন’ শব্দের সমার্থক শব্দ কোনটি?
উ: কুল
৬. ‘হাভাতে’ কোন সমাস?
উ: অব্যয়ীভাব
৭. ‘গাছ পাথর’ বাগধারাটির অর্থ-
উ: হিসাব-নিকাশ

৮. Bad workman quarrels with his tools-বাক্যটির যথাযথ অনুবাদ-
উ: নাচতে না জানলে উঠান বাঁকা।
৯. মহাকবি নন-
উ: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
১০. নদী ও নারী উপন্যাসের রচয়িতা কে?
উ: হুমায়ুন কবির
১১. ‘টাকায় টাকা আনে’ এ বাক্যে ‘টাকায়’ পদটি কোন কারকে কোন বিভক্তি?
উ: অপাদানে ৭মী।
১২. পুত্রের নিকট মাতার পত্রের সম্বোধন কোনটি হবে?
উ: স্নেহাসম্পদ
১৩. বশির আমাকে বলল, ‘আমি এক্ষণি আসছি’-পরোক্ষ উক্তিতে বাক্যটি কী হয়? উ: বশির আমাকে বলল যে সে তক্ষুণি যাচ্ছে।
১৪. বাগধারা হিসাবে প্রয়োগ করা হয় না কোন শব্দটি?
উ: চোখের জল।
১৫. ‘গবেষণা’ শব্দের সঠিক সন্ধি-বিচ্ছেদ কোনটি?
উ: গো+এষণা
১. ”যা লাফিয়ে চলে’-এক কথায় বলে?
উলস্ফ///লাফবাজ///দড়াবাজ///@@প্লবগ
২. নারীকে সম্বোধনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে @@কল্যাণীয়েষু///কল্যাণবরেষু///
শ্রদ্ধাস্পদেষু///শ্রদ্ধাস্পদেসু
৩. ‘Nothing succeeds like success’ -এর বঙ্গানুবাদ হলো-
চোর পালালে বুদ্ধি বাড়ে///জীবন থাকলেই আশা থাকবে///@@জলেই জল বাঁধে///চাঁদেও কলঙ্ক আছে
৪. ‘আমার গানের মালা আমি করব কারে দান।’ -বাক্যটিতে ‘কারে’ শব্দটি কোন কারকে কোন বিভক্তি?
করণে সপ্তমী///@@কর্মে সপ্তমী///কর্তায় সপ্তমী///অপাদানে সপ্তমী
৫. ‘পঞ্চনদ’-কোন সমাস? @@দ্বিগু ///কর্মধারয়///দ্বন্দ্ব///অব্যয়ীভাব
৬. কোন গ্রন্থটি মহাকাব্য? অবকাশ রঞ্জিনী///@@বৃত্রসংহার///বিরহ বিলাপ///বীরাঙ্গনা কাব্য
৭. ‘রামগরুড়ের ছানা’ কথাটির অর্থ- কাল্পনিক জন্তু///@@গোমড়ামুখো লোক///বোকা///পুরাণোক্ত পাখি
৮. নিচের কোন বানানগুচ্ছ শুদ্ধ?
পিশাচ, শিরোচ্ছেদ, নূপুর///@@পিশাচ, শিরচ্ছেদ, নূপুর///পিচাশ, শিরচ্ছেদ, নুপূর///পিশাচ, শিরোচ্ছেদ, নুপুর
৯. বাংলা সাহিত্যের ভোরের পাখি কে? প্রমথ চৌধুরী///ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর///
@@বিহারীলাল চক্রবর্তী///দীনেশচন্দ্র সেন
১০. ‘আবোল-তাবোল’ কার লেখা: @@সুকুমার রায়///সুকান্ত ভট্টাচার্য///অক্ষয় কুমার বড়াল///সত্যজিৎ রায়
১১. কোনটির আগে স্ত্রীবাচক শব্দ যোগ করে লিঙ্গান্তর করতে হয়? @@কবি///নেতা///দাতা///বাদশা
১২ ‘সাহেব’ শব্দের বহুবচন কোনটি? সাহেবমন্ডলী///সাহেবসমূহ///সাহেবকূল///
@@সাহেবান
১৩. কোন বাগধারাটির অর্থ ভিন্ন? অহিলকুল সম্বন্ধ///@@ঢাকের কাঠি///আদায় কাঁচকলা///দা-কুমড়া
১৪. ‘শশাঙ্ক’-এর সমার্থক শব্দ কোনটি? খরগোশ///সমুদ্র///সূর্য///@@চাঁদ
১৫. বাংলা ব্যাকরণ প্রথম রচনা করেন কে? ড. সুনীতি কুমার চট্টোপাধ্যায়///উইলিয়াম কেরী///@@নাথিয়েল ব্রাসি হ্যালহেড///ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ
২১. ‘প্রাগৈতিহাসিক’ গল্পের রচয়িতা- মানিক বন্দ্যোপাধ্যায় ২২. চাষাভুষার কাব্য কার রচনা? নির্মলেন্দু গুণ ২৩. নিচের কোন গ্রন্থ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত নয়? দোলনচাঁপা
২৪. নিচের কোন বানান শুদ্ধ? সমীচীন,বাল্মিকী
২৫. ‘মিতালি’ কোন প্রকৃতির শব্দ? যৌগিক
২৬. ‘বিষাদ-সিন্ধু’ উপন্যাসের নায়কের নাম কি? ইমাম হোসেন
২৭. ‘ও কি গাড়িয়াল ভাই কত রব আমি পান্থের দিকে চাইয়া রে-‘কোন ধরনের গান? ভাওয়াইয়া
২৮. ক্ষীয়মান এর বিপরীত শব্দ কি? বর্ধমান
২৯. ‘মানচিত্র’ নাটক কে রচনা করেন? আনিস চৌধুরী
৩০. ‘জীবন-প্রভাত’ কোন ধরনের উপন্যাস? ঐতিহাসিক
৩১. ‘কাননে কুসুম কলি সকলি ফুটিল’-এই বাক্যে কাননে কোন কারকে কোন বিভক্তি? অধিকরণে ৭মী
৩২. ‘কোথায় স্বর্গ কোথায় নরক কে বলে তা বহুদূর’-এই অমর পঙক্তির রচয়িতা- শেখ ফজলল করিম
৩৩. অনূদিত গ্রন্থ ‘নি:সঙ্গতার একশ বছর’-এর মূল লেখক- গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেজ
৩৪. ‘সাহিত্যের কাছে প্রত্যাশা’-কার লেখা বই? যতীন সরকার
৩৫. ম্যাক্সিম গোর্কির ‘মা’ কোন ভাষায় রচিত? রুশ
১. গীতাঞ্জলি কার রচিত গ্রন্থঃ
মাইকেল মধুসূদন দত্ত///@@রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর///সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত /// কাজী নজরুল ইসলাম
২. ফল পাকলে মরে যায় এমন গাছ
বনস্পতি///আগাছা///@@ওষধি /// পরগাছা
৩. কোন শব্দটি ‘অমৃত’ শব্দের বিপরীতার্থক শব্দ ?
মৃত///@@গরল///তিক্ত///সরল
৪. কোনটি অশ্বের ডাক?
ক্রেকার///বৃংহতি///বুকুন///@@হ্রেষা
৫. কোন লেখক মুসলিম নারী জাগরণের অগ্রদূত?
সুফিয়া কামাল///@@বেগম রোকেয়া/// সেলিনা হোসেন /// বেগম শামসুন্নাহার
৬. হাতে আসা-এর যথার্থ অর্থ –
@@আয়ত্তে আসা///প্রভাবাধীন///দক্ষত///
বোধগম্যতা
৭. ‘একাদশে বৃহস্পতি’ বলতে কী বোঝায় ?
বিরাট আয়োজন///গুরুত্বহীন কথা///হঠাৎ গরিব হওয়া ///@@সৌভাগ্যের বিষয়
৮. “আকাশ’ শব্দের সমার্থক কোনটি ?
@@অম্বর///অবনী///পাবক///ভূধর
৯. শুদ্ধ বানান কোনটি ?
শুশ্রসা///@@শূন্য///প্রনয়ণ/// মুহুরত
১০. Civil societyএর পরিভাষা কী ?
সভ্য সমাজ///বেসামরিক সমাজ///@@সুশীল সমাজ /// ভদ্র সমাজ
১১. বাংলা বর্ণমালায় মোট বর্ণ কতটি ?
১১///৩৯///৫১///@@৫০
১২. নিচের কোন শব্দটি ভিন্নার্থক?
জলধি//সিন্ধু///@@প্রবাহিনী///সমুদ্র
১৩. নিচের কোনটি অর্ধ-তৎসম শব্দ?
গিন্নি///গঞ্জ///@@হস্ত///তসবি
১৪. পথের দাবি উপন্যাসের রচয়িতা কে?
@শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়///মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়///সত্যেন সেন///সুকান্ত ভট্টাচার্য
১৫. গৃহী শব্দের বিপরীতার্থক শব্দ-
সংসারী///সংস্থিতি///@সন্ন্যাসী
১৬. নিচের কোন বানানটি শুদ্ধ ?
পিপিলিকা///@@পিপীলিকা///
পীপিলিকা /// পিপিলীকা
১৭. ভাষা-আন্দোলন বিষয়ক উপন্যাস কোনটি ?
@@আরেক ফাল্গুন/// জীবন ঘষে আগুন///নন্দিত নরকে ///পিঙ্গল আকাশ
১৮. ‘পার হইয়া’ এর চলতি রূপ কোনটি ?
পেরিয়ে///@@পার হয়ে///পার হইয়্যা ///পরিয়ে
১৯. ‘কোমল’ এর বিপরীত শব্দ কোনটি?
নম্র///@@কর্কশ///মদন ///ভালো
২০. “বায়স’ শব্দের অর্থ কী?
বয়সী///@@কাক///কোকিল///বৃদ্ধি
২৬. রূপসী বাংলার কবি কে? Ans:জীবনানন্দ দাশ
২৭. ‘শিষ্টার’ –এর সমার্থক শব্দ কোনটি? সদাচার ২৮. বাংলা ভাষায় কয়টি যৌগিক স্বরবর্ণ রয়েছে? Ans:২ টি
২৯. “ষ্ণ” যুক্ত বর্ণটি ভাঙলে কোন দুটি বর্ন পাওয়া যায়? Ans:ষ+ণ
৩০. নিচের কোন শব্দ অশুদ্ধ? সুকেশী, সুকেশা, Ans:সুকেশীনী, সুকেশিনী,
৩১. ‘আভরণ’ শব্দের সমার্থক শব্দ কোনটি? Ans:অলংকার
৩২. ‘ফুলমনি ও করুণার বিবরণ’ গ্রন্থটির রচয়িতা কে? Ans:হ্যানা ক্যাথেরিন
৩৩. ‘নবান্ন’ শব্দটি কোন প্রক্রিয়ায় গঠিত? Ans:সমাস
৩৪. ক্রিয়াপদের মূল অংশকে বলা হয়— Ans:ধাতু
৩৫. ‘শেষের কবিতা’ কোন ধরণের রচনা? Ans:উপন্যাস
৩৬. নিচের কোন বানানটি শুদ্ধ? শারীরীক, শারিরীক, শারীরিক, শারিরিক
Ans:শারীরিক
৩৭. কোন কবিতার জন্য কাজী নজরুল ইসলাম কারাবরণ করেন? Ans:আনন্দময়ীর আগমনে
৩৮. যে ব্যয় করতে কুন্ঠাবোধ করে—এক কথায় প্রকাশ করলে হবে— ব্যয়কুণ্ঠ
৩৯. শুদ্ধ বানান কোনটি? সান্তনা, সান্ত্বনা, স্বান্তনা, সান্তোনা
Ans:সান্ত্বনা,
৪০. ‘রিক্সা’ কোন ভাষার শব্দ? Ans:জাপানী
৪১. বাংলা সাহিত্যের প্রাচীনতম নিদর্শন পাওয়া যায়— Ans:নেপালে
৪২। ‘ব্রজবুলি’ ভাষার স্রস্টা— Ans:বিদ্যাপতি
৪৩. ফোর্ট উইলিয়াম কলেজে বাংলা বিভাগ খোলা হয়— Ans:১৮০১ সালে
৪৪. ‘আমার সন্তান যেন থাকে দুধে-ভাতে’ উক্তিটি কোন কাব্যের অন্তর্গত? Ans:অন্নদামঙ্গল কাব্যের
৪৫. বাংলা সাহিত্যের মধ্যযুগে মুসলিম কবিদের উল্লেখযোগ্য অবদান— Ans:রোমান্টিক প্রণয়োপাখ্যান
৪৬. মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস কোনটি? Ans:নিষিদ্ধ লোবান
৪৭. ‘নয়নচারা’ কোন শ্রেণির রচনা? Ans:গল্প
৪৮. কাজী নজরুল ইসলামের প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ— Ans:অগ্নিবীণা
৪৯. ‘আটকপালে’ বাগধারার অর্থ— Ans:হতভাগ্য
৫০. ‘স্বাধীনতা হীনতায় কে বাঁচিতে চায়’- চরণটি কার রচনা? Ans:রঙ্গলাল
১। কোন বিখ্যাত সাহিত্যিক ব্রিটিশ শাসনামলে ঢাকায় পোস্ট মাস্টারের পদে কর্মরত ছিলেন?
মীর মোশাররফ হোসেন///দীনবন্ধু মিত্র///
হরিশচন্দ্র মিত্র///মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়
উ: দীনবন্ধু মিত্র
২। কোন বাক্যটিতে ভুল নেই?
দরিদ্রতা অভিশাপ///ফুল দেখতে সৌন্দর্য///ভুল লিখতে ভূল করো না///শনিতে অশনি দেখতে পাইলাম
উ: দরিদ্রতা অভিশাপ
৩। বাবা বাড়ি নেই-বাক্যটিতে ‘বাড়ি’ কোন কারকে কোন বিভক্তি?
কর্মে শূন্য///কর্তৃকারকে শূন্য///অধিকরণে শূন্য///অপাদানে শূন্য
উ: অধিকরণে শূন্য
৪। রানার কবিতাটির রচয়িতা?
কাজী নজরুল ইসলাম///যতীন্দ্র মোহন বাগচী///সুকান্ত ভট্টাচার্য///বন্দে আলী মিয়া
উ: সুকান্ত ভট্টাচার্য
৫। শরৎচন্দ্রের শ্রীকান্ত কোন শ্রেণীর উপন্যাস?
ঐতিহাসিক///আত্মজৈবনিক///
সামাজিক///রহস্য
উ: আত্মজৈবনিক
৬। ‘এবং’ কোন পদ?
সর্বনাম///বিশেষণ///বিশেষ্য///অব্যয়
উ: অব্যয়
৭। ডাক-হরকরা গল্পটির রচয়িতা কে?
বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়///রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর///কাজী নজরুল ইসলাম///তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
উ: তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
৮। নিচের কোনটি জসিম উদদীনের রচনা নয়?
পদ্মার পলিদ্বীপ///রাখালি///ধানক্ষেত///নকশি কাঁথার মাঠ
উ: পদ্মার পলিদ্বীপ

৯। ‘অরণ্যে রোদন’ কথাটির অর্থ কী?
অবিরাম কান্না///ছিঁচকাঁদুনে///বৃথা চেষ্টা///বারংবার চেষ্টা করা
উ: বৃথা চেষ্টা
১০। বাড়ি যাও-এটি কোন প্রকারের বাক্য?
প্রশ্নবোধক///নিষেধাত্মক///
আম্চর্যবোধক///অনুজ্ঞা
উ: অনুজ্ঞা
১১। কাজী নজরুল ইসলামের জন্ম ১৮৯৯ সালে-আরেক জন কবিও একই বছরে জন্মগ্রহণ করেন, তিনি কে?
কালিদাস রায়///জীবনানন্দ দাশ///সুকান্ত ভট্টাচার্য///বন্দে আলী মিয়া
উ: জীবনানন্দ দাশ
১২। কোন জন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেনন নি?
আব্দুল করিম///আনিসুজ্জামান///হুমায়ুন আজাদ///সানজীদা খাতুন
উ: সানজীদা খাতুন
১৩। পদ্ম গোখরা গল্পটির রচয়িতা কে?
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর///কাজী নজরুল ইসলাম///মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়///প্রেমেন্দ্র মিত্র
উ: কাজী নজরুল ইসলাম
১৪। বিয়েপাগল শব্দটি কোন সমাস?
অব্যয়ীভাব///প্রাদি///বহুব্রীহি///
কর্মধারয়
উ: কর্মধারয়
১৫। I can’t help doing it.’-বাক্যটির সঠিক অনুবাদ কোনটি?
আমি এটা না করে পারি না///আমি এটা সাহায্য ছাড়া করতে পারি না///আমি এটা করতে সাহায্য না করে পারি না///আমি এটা সাহায্য নিয়েও করতে পারি না
উ: আমি এটা না করে পারি না.
২৬। নিচের শব্দগুলোর মধ্যে কোনটি দেশি শব্দ নয়?
উ: চাবি
২৭। বিভক্তিহীন নাম পদকে বলা হয়-
উ: প্রাতিপাদিক
২৮। ‘গুরুচন্ডালী’ দোষমুক্ত শব্দ কোনটি?
উ: শবদাহ
২৯। কোন বাক্যে ‘মাথা’ শব্দটি বুদ্ধি অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে?
উ: মাথা খাটিয়ে কাজ কর
৩০। অর্বাচিন শব্দের বিপরীত শব্দ কোনটি?
উ: প্রাচীন
৩১। নিচের কোন শব্দটি ‘চিকুর’ শব্দের সমার্থক নয়?
উ: কর
৩২। যে জমিতে ফসল জন্মায় না-এক কথায়-
উ: ঊষর
৩৩। ‘অপমান’ শব্দের ‘অপ’ উপসর্গটি কোন অর্থে ব্যবহৃত হয়?
উ: বিপরীত
৩৪। ‘চর্যাপদ’ প্রথম কোথা থেকে প্রকাশিত হয়?
উ: বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ
৩৫। ‘খনার বচন’-বেশির ভাগ কী নিয়ে-
উ: কৃষি
৩৬। মধ্যযুগের অনুবাদ সাহিত্য রচনায় কোন মুসলিম শাসকের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে?
নাসির উদ্দীন শাহ///মুর্শিদ কুলি খাঁ///শাহ সুজা///আলাউদ্দিন হুসেন শাহ
৩৭। ‘ইউসুফ জুলেখা’ কাব্য কোন কবির রচনা?
উ: শাহ মুহম্মদ সগীর
৩৮। বিদ্যাপতি কোন ভাষায় তাঁর পদগুলো রচনা করেন?
উ: মৈথিলি ভাষা
৩৯। মুকুন্দরাম চক্রবর্তী কোন মঙ্গল কাব্য ধারার কবি?
উ: চন্ডীমঙ্গল
৪০। মার্সিয়া-কি?
উ: শোকগীতি
৪১। ‘চেষ্টায় সুসিদ্ধ করে জীবনের আশা’-বাক্যটি কার রচনা?
উ: ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্ত
৪২। বাংলা কাব্যে অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক?
উ: মাইকেল মধুসূদন দত্ত
৪৩। কোনটি বিষাদ সিন্ধু উপন্যাসের চরিত্র নয়?
উ: কুবের
৪৪। বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের জন্ম সন কোনটি?
উ: ১৮৩৮
৪৫। কোন গ্রন্থটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত নয়?
উ: ঘুম নেই
৪৬। কোন সাহিত্যিক ব্যাঙাচি ছদ্মনামে লিখতেন?
উ: কাজী নজরুল ইসলাম
৪৭। চুনিয়া আমার আর্কেডিয়া গ্রন্থের রচয়িতা-
উ: রফিক আজাদ
৪৮। ‘কালো বরফ’ রচনা করেন-
উ: মাহমুদুল হক
৪৯। ‘হাত-হদাই’একটি-
উ: নাটক
৫০। একাত্তরের ডায়েরী কার লেখা-
উ: সুফিয়া কামাল
৫১। চর্যাপদের সবচেয়ে বেশি পদ রচনা করেন-
উ: কাহ্ণপা
৫২। Epic শব্দের পরিভাষা কী?
উ: মহাকাব্য
৫৩। ‘আফতাব’ শব্দের সমার্থক কোনটি?
উ: অর্ক
৫৪। বাংলা লিপির উৎস-
উ: ব্রাক্ষ্মী লিপি
৫৫। ইনকিলাব শব্দের অর্থ-
উ: বিপ্লব
৫৬। কোন বানানটি শুদ্ধ?
উ: বিভীষিকা
৫৭। ‘চাচা কাহিনী’-গ্রন্থের লেখক-
উ: সৈয়দ মুজতবা আলী
৫৮। বাংলা সাহিত্যের মধ্য যুগ কোনটি?
উ: ১২০১-১৮০০
৫৯। খনার খ্যাতির কারণ-
উ: বচন
৬০। ‘শশাঙ্ক’ শব্দের সন্ধি-বিচ্ছেদ-
উ: শশ+অঙ্ক
৬১। কোনটি মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক নাটক নয়?
উ: ইবলিশ
৬২। ‘সে নাকি আসবে না’-এ বাক্যে না অব্যয়টি কী অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে?
উ: সংশয়
৬৩। পোস্টাল কোড কী নির্দেশ করে?
উ: পোস্ট অফিসের নম্বর
৬৪। “বাজার শেষ করে বাড়ি”-বাক্যটিতে কোন গুণের অভাব রয়েছে?
উ: আকাঙ্ক্ষা
৬৫। ধাতু চিহ্ণ বোঝাতে কোন চিহ্ণ ব্যবহৃত হয়?
উ:√
৬৬। জন্ডিস ও বিবিধ বেলুন কোন ধরনের রচনা?
উ: নাটক
৬৭। কোনটিতে বিরামচিহ্ণ যথাযথভাবে ব্যবহৃত হয়নি?
উ: চট্টগ্রাম, ২৬ মার্চ ১৯৭১
৬৮। ‘কর্মে ক্লান্তি নাই যাহার’-এক কথায় প্রকাশ-
উ: অক্লান্ত কর্মী
৬৯। …… চরিত্রটি মধ্যযুগের কোন কাব্যে পাওয়া যায়?
৭০। কোন দুটি যৌগিক বর্ণ?
উ: ঐ,ঔ
৭১। ব্যয় করতে কুন্ঠাবোধ করেন যিনি-
উ: ব্যয় কুন্ঠ
৭২। ‘সঞ্চিতা’ কোন কবির কাব্য সংকলন?
উ: কাজী নজরুল ইসলাম
৭৩। বীরবল কার ছদ্মনাম?
উ: প্রমথ চৌধুরী
৭৪। প্র, পরা-কোন ধরনের উপসর্গ?
উ: সংস্কৃত
৭৫। ‘মৃত্যুক্ষুধা’ গ্রন্থের রচয়িতা-
উ: কাজী নজরুল ইসলাম
৭৫. আরেক ফাল্গুন গ্রন্থটির রচয়িতা কে?
Ans: জহির রায়হান
৭৬. কোন বানানটি শুদ্ধ?
Ans: পোশাক
৭৭. কোন বিরাম চিহ্নের বিরতি কাল নেই?
Ans: হাইফেন
৭৮. কোন বানানটি শুদ্ধ ?
Ans: বিভীষিকা
৭৯. আলালী বা হুতোমি ভাষা বলা হয় কোনটিকে?
Ans: চলিত ভাষা
৮০.দুহিতার বিপরীত শব্দ কোনটি?
Ans: পুত্র
৮১। Autonomous শব্দের অর্থ?
Ans: স্বায়ত্তশাসিত
৮২। জায়া শব্দের সমার্থক শব্দ কোনটি?
Ans: অর্ধাঙ্গী
৮৩। ‘চতুষ্পদ’ শব্দের সন্ধি বিচ্ছেদ কোনটি
Ans: চতু:+পদ
৮৪। সিংহপুরুষ কোন সমাস?
Ans: উপমিত কর্মধারয়
৮৫। মানব শব্দের প্রকৃতি ও প্রত্যয় কোনটি?
Ans: মনু+ষ্ণ
৮৬। যে উপকারীর অপকার করে?
Ans: কৃতঘ্ন
৮৭। ‘পাপে বিরত থাকো’-কোন কারকে কোন বিভক্তি
Ans: অপাদান কারকে সপ্তমী বিভক্তি
৮৮। Edition শব্দের অর্থ-
Ans: সংস্করণ
৮৯। রাত্রি শব্দের সমার্থক নয় কোনটি?
Ans: ভানু
৯০। পূর্বে ছিল এখন নেই-বাক্য সংকোচন কোনটি?
Ans: ভূতপূর্ব
৯১। ‘কেতা দূরস্ত’ বাগধারার অর্থ কী?
Ans: পরিপাটী
৯২। সন্ধি ব্যাকরণের কোন অংশে আলোচিত হয়
Ans: ধ্বনিতত্ত্বে
৯৩। বাংলা ভাষায় যতি চিহ্ণের প্রচলন করেন কে?
Ans: ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর
৯৪। ‘মহিমা’ শব্দের প্রকৃতি ও প্রত্যয় কোনটি?
Ans: মহৎ+ইমন
৯৫। আবির্ভাব এর বিপরীত শব্দ কোনটি?
Ans: তিরোভাব
৯৬। দহরম মহরমের বিপরীত বাগধারা কোনটি?
Ans: অহিনকুল
৯৭। নিচের কোনটি শুদ্ধ বানান?
Ans: ন্যূনতম
৯৮। সৌম্য শব্দের বিপরীত শব্দ কোনটি?
উ: উগ্র
৯৯। ‘ডাক্তার ডাক’-কোন কারকে কোন বিভক্তি?
Ans:কর্ম কারকে শূন্য বিভক্তি
১০০। মৌমাছি কোন সমাস?
Ans: কর্মধারয় সমাস
৫১। বাংলা ভাষা কোন ভাষা থেকে এসেছে?
উ: গৌড়ীয় প্রাকৃত
৫২। কোনটি মৌলিক স্বরধ্বনি?
উ: এ
৫৩। বাংলা ভাষারীতির কয়টি রূপ?
উ: দুইটি
৫৪। ষষ্ঠ এর সন্ধি বিচ্ছেদ কোনটি?
উ: ষষ্+থ
৫৫। নিচের কোনটি যোগরূঢ় শব্দ?
উ: পঙ্কজ
৫৬। ‘অদ্য’ শব্দটি কোন ভাষারীতির উদাহরণ?
উ: সাধু
৫৭। কোনটি ওষ্ঠ্য ধ্বনি?
উ: ভ, ম
৫৮। চন্দ্রের প্রতিশব্দ নয়-
উ: সবিতা
৫৯। কোন বানানটি শুদ্ধ?
উ: মুমূর্ষু
৬০। কোনটি তৎপুরুষ সমাস?
উ: মধুমাখা
৬১। ‘পাখির নীড়ের মতো চোখ তুলে নাটোরের বনলতা সেন’-এখানে ‘নীড়’ শব্দটি কী অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে?
উ: আশ্রয়
৬২। শুদ্ধ বানান কোনটি?
উ: প্রাণিকুল
৬৩। ‘গোবর গণেশ’ বাগধারাটির অর্থ কী?
উ: নিরেট মূর্খ
৬৪। কোনগুলো দন্ত্যধ্বনি?
উ: ত থ দ ধ
৬৫। কোনটি দেশি শব্দ?
উ: কুলা
৬৬। কোনটি ধ্বনি বিপর্যয়ের উদাহরণ?
উ: লাফ>ফাল
৬৭। পতাকা এর সমার্থক শব্দ কোনটি?
উ: কেতন
৬৮। নয়ন শব্দটির সঠিক প্রত্যয় নির্ণয়-
উ: নে+অন
৬৯। বাক্যে বিস্ময়সূচক (!) চিহ্ণ থাকলে কতক্ষণ থামতে হয়?
উ: এক সেকেন্ড
৭০। ‘অলীক’ এর বিপরীত শব্দ-
উ: বাস্তব
৭১। ‘পড়ায় আমার মন বসে না’-এখানে পড়ায় কোন কারকে কোন বিভক্তি?
উ: অধিকরণ কারকে ৭মী বিভক্তি
৭২। কোনটি দ্বিগু সমাস?
উ: সপ্তাহ
৭৩। ‘নদী’ এর সমার্থক শব্দ কোনটি?
উ: সরিৎ
৭৪। নাদ শব্দের অর্থ কি?
উ: সিংহের ডাক
৭৫। অনুবাদ কত প্রকার?
উ: ২ প্রকার
Hridoy khan –
১। রবীন্দ্রনাথ পতিসর
২। প্রাচীন যুগ -চর্যাপদ
৩। সুফিয়া কামাল- তাহারেই পড়ে মনে
৪। কোর্মা – তুর্কি
৫। দ্ধ – দ + ধ
৬। রবীন্দ্রনাথের শেষ কাব্যগ্রন্থ- শেষ লেখা
৭। বেগম রোকেয়ার লিখিত নয় – পদ্মাবতী
৮। ‘কাদম্বিনী’ চরিত্রটি – জীবিত ও মৃত
৯। ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর – ১৯ শতক
১০। আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো- গাফফার চৌধুরী
১১। ‘স্বাধীন’ = স্ব+অধীন
১২। মাইকেল মধুসূদন মহাকাব্য – মেঘনাদবধ কাব্য
১৩। জসীম উদ্দীনের কাব্যগ্রন্থ – রাখালী
১৪। সমাসবদ্ধ নয়? – বিদ্যালয়
১৫। মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র? – গেরিলা
১৬। অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক – মধুসূদন দত্ত
১৭। ‘নুরলদীনের সারাজীবন’ – কাব্যনাট্য
১৮। বানানটি শুদ্ধ- মুহূর্ত
১৯। আখতারুজ্জামান ইলিয়াস- চিলেকোঠার সেপাই
২০। কাজী নজরুল ইসলামের প্রবন্ধ – রুদ্রমঙ্গল
২১। হুমায়ূন আজাদের উপন্যাস – লাল নীল দীপাবলী
২২। ভাত -তদ্ভব
২৩। ‘নীপ’ শব্দের অর্থ – কদম
২৪। ‘রুপসী বাংলা’ -জীবনানন্দ দাশ
২৫। ‘আনন্দলোকে মঙ্গলালোকে বিরাজ সত্য সুন্দর’-রবীন্দ্রনাথ

The Invisible Problem

Men ought to know that from the brain, and from the brain
only, arise our pleasures, joys, laughter and jests, as well as
our sorrows, pains, griefs and tears. Through it, in particular,
we think, see, hear and distinguish the ugly from the
beautiful, the bad from the good, the pleasant from the
unpleasant. It is the same thing which makes us mad or
delirious, inspires us with fear, brings sleeplessness and
aimless anxieties. . . . In these ways I hold that the brain is
the most powerful organ in the human body.
HIPPOCRATES

Capture.JPG_mirjafahad.blog
Ready for the good news?
Nestled within your skull, mere inches from your eyes,
are eighty-six billion of the most efficient transistors in the
known universe. This neural network is you, running the
operating system we know as life, and no computer yet
conceived comes close to its awesome capabilities. Forged
over millions and millions of years of life on Earth, your
brain is capable of storing nearly eight thousand iPhones’
worth of information. Everything you are, do, love, feel,
care for, long for, and aspire to is enabled by an incredibly
complex, invisible symphony of neurological processes.
Elegant, seamless, and blisteringly fast: when scientists tried
to simulate just one second of a human brain’s abilities, it
took supercomputers forty minutes to do so.
Now for the bad news: the modern world is like The
Hunger Games, and your brain is an unwitting combatant,
hunted mercilessly and relentlessly from all sides. The way
we live today is undermining our incredible birthright,
fighting our optimal cognitive performance, and putting us
at risk for some seriously nasty afflictions.
Our industrially ravaged diets supply cheap and plentiful
calories with poor nutrient content and toxic additives. Our
careers shoehorn us into doing the same tasks over and over
again, while our brains thrive with change and stimulation.
We are saddled with stress, a lack of connection to nature,
unnatural sleep patterns, and overexposure to news and
tragedy, and our social networks have been replaced by The
Social Network—all of which lead ultimately to premature
aging and decay. We’ve created a world so far removed
from the one in which our brains evolved that they are now
struggling to survive.
These modern constructs drive us to compound the
damage with our day-to-day actions. We convince ourselves
that six hours in bed means we’ve gotten a full night’s sleep.
We consume junk food and energy drinks to stay awake,
medicate to fall asleep, and come the weekend go overboard
with escapism, all in a feeble attempt to grasp a momentary
reprieve from our daily struggle. This causes a short circuit
in our inhibitory control system—our brain’s inner voice of
reason—turning us into lab rats frantically searching for our
next dopamine hit. The cycle perpetuates itself, over time
reinforcing habits and driving changes that not only make
us feel crappy, but can ultimately lead to cognitive decline.
Whether or not we are conscious of it, we are caught in
the crossfire between warring factions. Food companies,
operating under the “invisible hand” of the market, are
driven by shareholders to deliver ever-increasing profits lest
they risk irrelevance. As such, they market foods to us
explicitly designed to create insatiable addiction. On the
opposing front, our underfunded health-care system and
scientific research apparatus are stuck playing catch-up,
doling out advice and policy that however well intentioned
is subject to innumerable biases—from innocuous errors of
thought to outright corruption via industry-funded studies
and scientific careers dependent on private-interest funding.
It’s no wonder that even well-educated people are
confused when it comes to nutrition. One day we’re told to
avoid butter, the next that we may as well drink it. On a
Monday we hear that physical activity is the best way to lose
weight, only to learn by Friday that its impact on our
waistline is marginal compared to diet. We are told over and
over again that whole grains are the key to a healthy heart,
but is heart disease really caused by a deficiency of morning
oatmeal? Blogs and traditional news media alike attempt to
cover new science, but their coverage (and sensational
headlines) often seems more intent on driving hits to their
websites than informing the public.
Our physicians, nutritionists, and even the government
all have their say, and yet they are consciously and
subconsciously influenced by powers beyond the naked
eye. How can you possibly know who and what to trust
when so much is at stake?

How to Outrank Big Companies When You Have No SEO Budget

There’s a formula to SEO and as long as you follow it, you’ll get rankings.

So, what’s this formula?

Well, you write amazing content, optimize your code, create a great user experience, and you mix in some backlinks.

Sounds simple, right?

Well, the formula isn’t too complicated, but it does require hard work and patience.

Now what makes SEO challenging isn’t the formula, or the time, or the patience. It has more to do with how you beat people who have more money than you because, in theory, they can do more of everything, which should cause them to outrank you.

But you know what? I’m going to let you in on a little secret. I love SEO because it’s the one channel where you can beat big companies even if you can’t outspend them.

How? Well, let’s go over that.

Let’s first start with the two mental shifts you’ll have to make.

Mental shift #1: Speed is everything

What most people won’t tell you is big companies need to spend more to get the same results that you can for pennies on the dollar. They have way too many employees and layers in their organization to move fast and nimble.

In other words, everything moves slowly.

So, what do they do? They spend money in hopes that it makes them move faster. But the reality is, spending more doesn’t necessarily get them faster results.

If you want to beat them, the first thing you’ll have to do is focus on execution. If you can’t move fast, you won’t win.

This is your biggest advantage.

The reason I have gotten to where I am today is due to my execution speed. And now that we keep growing in size, things are moving slower.

SEO Search engine optimization

For example, because my business has continually been growing, we now prioritize based on what makes us the most revenue and I bet you SEO isn’t as high on that priority list as it used to be. Not just for me, but for all companies my size and bigger.

You have to remember, we have multiple offices, hundreds of employees… we have to focus on what pays the bills.

So how do we compensate? We spend more money in hopes that it fixes it. Just like how I write less content these days, and I spend money on things like Ubersuggestand Backlinks in hopes that it helps.

But that won’t fix everything.

The point is, if you can move fast, it will give you a huge advantage.

623b2ba9-26a2-43ff-a659-1758f034dfb1mirjafahad-1

Mental shift #2: Scrappiness beats money

Alright, let’s recap the formula to SEO…

Content + SEO friendly code + user experience + backlinks = rankings.

I know Google has over 200 ranking factors, but the formula above encompasses the majority of it.

Now you are probably thinking that if you want to write content or build links you have to spend money, but that isn’t necessarily the case.

With my previous marketing blog, Quick Sprout, I grew it by partnering with other writers.

I wasn’t as well known in the marketing world back then, but I hit up people like Brian Dean and co-authored guides like this one on link building with him.

That guide is over 20,000 words. And Brian did the majority of the work and for free.

I also did something similar with Ritika Puri and we created a guide on marketing psychology.

And every time I partnered with other writers and marketers to create these in-depth guides my traffic skyrocketed.

The first time I published one, my traffic went up by 117% in 2 months.

Now, that’s something that you can still do to this day to see great results.

Another way you can boost your SEO traffic is to get people to contribute content to your site for free.

I did this with the KISSmetrics blog before I acquired it. During its peak, it generated 1,260,681 unique visitors a month.

We grew the KISSmetrics traffic through one simple approach… we hit up tons of writers in our space and asked them to contribute articles.

At first, we had to pay a few because the blog wasn’t known and we barely had any visitors. But once we paid a handful of well-known writers who were guest contributors on competing sites, we now had a great foundation.

We still didn’t have much traffic, but having those writers publish content was enough to convince other writers to submit content for free.

It’s a simple approach that still works to this day.

There are many ways you can be scrappy, you just have to think outside the box. Don’t think you need tons of money to solve your marketing problems. Being scrappy in most cases is more effective.

Now that we’ve covered the two mental shifts you need to make, let’s focus on the 4 quick wins that will yield the biggest results in the least amount of time.

Yes, many of these “quick wins” are well known, but less than 1% of SEOs focus on them. I know this because I have an ad agency that works with large Fortune 100 companies… and it doesn’t stop there, most companies no matter what size they are, don’t focus on these quick wins.

mirjafahad_2

Quick win #1: Land and expand

They say the more content you create the more traffic you will get.

Do you want to know what the big issue with this strategy is?

Writing more content doesn’t guarantee more traffic.

Content marketing has changed. Writing no longer guarantees you more traffic because there are over 1 billion blogs.

With people cranking out so much content on a daily basis, Google now has the choice of what content to rank and what not to rank.

Similar to me, your top 10 pages are going to make up a lot of your traffic… and probably more than me.

The top 10 pages on my site make up 29.23% of my traffic. That’s crazy considering I have 5,171 blog posts.

With your site, your top 10 pages will probably make up over 40% of your traffic as you probably don’t have as much content as me.

So instead of spending the majority of your time writing new content, why not get more traffic out of the content you have.

I call this the land and expand method. In other words, you already have pages that are getting search traffic and rank on Google, might as well adjust them so you can 2 or 3 times more search traffic to those pages.

Best of all, this method gets results within 1 month for most sites and within 2 months if your site doesn’t have as much authority.

If you want to leverage this technique, follow “step 2” in this article where I break down how to land and expand step by step.

mirjafahad_3

Quick win #2: Optimize for revenue, not traffic

Your goal is to increase your search traffic, right?

Well, if you are reading this blog it is. 😉

But as you get more search traffic, what’s happened to your revenue?

Actually, let’s rephrase the question… as my traffic climbed, can you guess what happened to my revenue?

That traffic according to SEMrush is worth $1.2 million.

But here is the thing: as my search traffic grew by 123%, my revenue only grew by 12.5%… not a good deal.

mirjafahad_4

Yes, you want to optimize your site for Google so you can rank higher. But what’s the point if it doesn’t increase your revenue?

You need to look at the pages on your site that are responsible for revenue generation activities and first optimize those so they rank higher on Google. You can do this by setting up goal tracking within Google Analytics.

Once you set up goal tracking, you’ll now know what pages to focus your attention on so that those extra visitors you in bring will turn into revenue. You can then take that extra revenue and reinvest it in your marketing initiatives.

Quick win #3: Optimize for clicks, not rankings

Question for you…

If everyone did a Google search and clicked on the second results instead of the first result, what do you think will happen?

Well, it would tell Google that people prefer the second listing and it would move that ranking to the number 1 spot.

To prove this theory, Rand Fishkin told all of his Twitter followers to search for the phrase “best grilled steak” and click on the 4th listing instead of the 1st.

mirjafahad_5

And within 70 minutes the 4th listing jumped up to the top spot.

It was so effective that the listing Rand Fishkin told everyone to clicked on skyrocketed to the top of Google for the phrase “grilled steak”.

If you want to boost your rankings, it isn’t just about the content you are creating or the links you are building. If people don’t want to click on your listing, you’ll find that your rankings will continually tank.

And if people click on yours more than the competitors, then your rankings will skyrocket even if you don’t build as many links.

So how do you increase your click-through-rate?

Well you don’t want to tell your friends to click on your listing as that is a temporary effect and your rankings will only climb for a short period of time. You want to optimize your title tag and meta description to encourage people to click on your listings over the competition.

This will cause your rankings to climb slower, but they will stick once you reach the top.

I won’t bore you with the details in this article on optimizing click-through-rates as I have already blogged on it… just head over to this post and follow hack number 1. 😉

Quick win #4: Update your old content

Have you noticed over time that your rankings fluctuate? No matter how good you are at SEO and no matter how much money you have, there is no guarantee you’ll be at the top spot.

mirjafahad_6

Do you want to know why your rankings drop?

Most people assume that it’s a penalty. But Google is very friendly (believe it or not), and their goal isn’t to penalize sites. Their goal is to rank the best sites at the top.

You know… the sites that users love the most.

Just think of it this way, if Google hypothetically penalized BMW for building backlinks and removed them from the index, what do you think would happen when people search for “BMW”?

People would be pissed that BMW isn’t showing up.

And they wouldn’t be pissed at BMW, they would be pissed at Google and they may not use Google again.

Google’s goal isn’t to penalize your site or be mean to you or tank your rankings. Their goal is simple… always put the site that is best for the end user at the top.

When your rankings tank, it’s typically because someone else created a page that provides a better experience for the term you were ranking for.

The way you fix this, maintain your rankings, and even climb higher is to continually update your old content.

If you have content that is old, outdated, or if your rankings drop, read this. It breaks down what to do step by step, and it will help you outrank your competition because I bet they aren’t updating their old content.

This is so effective I currently have 3 full-time people updating my old content.

You don’t have to get as crazy as me, but you should update your old content.

mirjafahad_7

Conclusion

Money isn’t stopping you from beating your competition. The only thing standing in your way is you.

That’s ok though. We can fix that.

With a few mindset shifts and some quick wins, things are about to change.

I’ve never let my competition get in my way. I don’t care if they have more money than me or that they have been at this longer.

If I started my journey cleaning restrooms and picking up trash and eventually got here… you can too.

There is nothing really stopping you from winning.

This article is collected from https://neilpatel.com

He is the co-founder of Neil Patel Digital. The Wall Street Journal calls him a top influencer on the web, Forbes says he is one of the top 10 marketers, and Entrepreneur Magazine says he created one of the 100 most brilliant companies. Neil is a New York Times bestselling author and was recognized as a top 100 entrepreneur under the age of 30 by President Obama and a top 100 entrepreneur under the age of 35 by the United Nations.

 

October 15, 2018 The Daily Star Editorial

There is a general perception among our people, especially our young generation, that higher education is the only way to become a member of the skilled work force. But as we move towards becoming a middle-income country, we need to change our mindset regarding university education or so-called higher education, and focus more on technical and vocational education to create a skilled workforce for the future. As experts in a recent roundtable have said, there is also no alternative to technical and vocational education to achieve the SDGs.

Unemployment is a big problem in Bangladesh as a large number of university and college graduates find it really hard to enter the job market due to a lack of practical skills. But with proper vocational training, they can easily become a part of the skilled workforce. There is also a perception in our society that such jobs are only for the less affluent. This stereotype must be broken and practical skills must be prioritised. Only then can we achieve the SDG8, which is about “decent work for all.”

Furthermore, although there are many government and non-government organisations that have been providing various types of skills development trainings and offering technical courses, information regarding these institutions and courses are not easily available. If such information can be made available to the students, they can decide on what courses or training they need to take to make themselves competent. At present, many private organisations are also providing such training. Therefore, they must work together to change our perceptions towards technical education. More investment in this sector is imperative so that we can take full advantage of our demographic dividend.

 

শব্দার্থগুলি জেনে নিই
****************************
১। Focus on-সংহত/কেন্দ্রীভূত/নিবদ্ধ করা;
২। technical education-কারিগরি শিক্ষা/প্রযুক্তিগত শিক্ষা;
৩। perception-উপলব্ধি; ধারণা;
৪। young generation-যুব সমাজ/তরুণ প্রজন্ম;
৫। higher education-উচ্চতর শিক্ষা;
৬। the only way to-একমাত্র পথ/উপায়;
৭। become-হওয়া;
৮। the skilled work force-দক্ষ কর্মচারী বা শ্রমিক/;
৯। move-এগিয়ে যাওয়া;
১০। towards-দিকে/পানে;
১১। a middle-income country-মধ্যম আয়ের দেশ;
১২। we need to change-আমাদের পরিবর্তন করা প্রয়োজন;
১৩। our mindset-আমাদের মানসিকতা;
১৪। university education-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা;
১৫। so-called higher education-কথিত উচ্চতর শিক্ষা;
১৬। roundtable-গোলটেবিল (বৈঠক);
১৭। alternative to -বিকল্প;
১৮। Unemployment-বেকারত্ব;
১৯। a big problem-বড় সমস্যা;
২০। enter the job market-চাকরীর বাজারে প্রবেশ করা;
২১। practical skills-ব্যবহারিক/প্রায়োগিক দক্ষতা;
২২। affluent-বিত্তবান; সুপ্রচুর;
২৩। stereotype-গৎবাধা;
২৪। achieve-অর্জন করা;
২৫। decent-যথোপযুক্ত;শোভন;
২৬। Furthermore-তদ্ব্যতীত/এছাড়াও;
২৭। although-যদিও;
২৮। government and non-government organisations-সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা;
২৯। skills development trainings-দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ;
৩০। available-পাওয়া যায় এমন;
৩১। decide on-(কোন বিষয়ে) সিদ্ধান্ত নেয়া;
৩২। need to take-নেয়া প্রয়োজন/দরকার;
৩৩। competent-উপযুক্ত; সক্ষম;দক্ষ;
৩৪। At present-বর্তমানে;
৩৫। private organisations-ব্যক্তিগত সংস্থা/বেসরকারি সংস্থা;
৩৬। Therefore-সেইকারণে; সুতরাং;
৩৭। change our perceptions-আমাদের চিন্তা-চেতনা/ধারণা পরিবর্তন করা;
৩৮। imperative-জরুরি; অপরিহার্য;
৩৯। advantage of -লাভ;উপকার;

বাংলা ২য় পত্র

 


  • ১. একটি স্বরধ্বনির প্রভাবে অন্য
    স্বরধ্বনির পরিবর্তন ঘটলে তাকে কী
    বলে?
    ক.স্বরলোপ
    খ.সমীকরণ
    গ. অন্ত্যস্বরলোপ
    ঘ.স্বরসংগতি
    .
    ২.শব্দের মধ্যে দুটি ব্যঞ্জনের
    পরিবর্তন ঘটলে তাকে কী বলে?
    ক.ধ্বনি বিপর্যয়
    খ.সমীভবন
    গ.বিষমীভবন
    ঘ.অভিশ্রুতি
    .
    ৩.পরের ‘ই’ কার ও ‘উ’ কার আগে
    উচ্চারিত হলে তাকে কী বলে?
    ক.বিপ্রকর্ষ
    খ. অর্ন্তহতি
    গ.অভিশ্রুতি
    ঘ.অপিনিহিতি
    .
    ৪.দুটি সমবর্ণের একটি পরিবর্তনকে
    কী বলে?
    ক.সমীভবন
    খ.ব্যঞ্জনবিকৃতি
    গ.ব্যঞ্জনদ্বিত্বতা
    ঘ.বিষমীভবন
    ৫.দ্রুত উচ্চারণের জন্য শব্দের
    আদিতে, অন্ত্য বা মধ্যবর্তী কোন
    স্বরলোপ কী বলে?
    ক.বিষমীভবন
    খ.সমীভবন
    গ.স্বরসংগতি
    ঘ.সম্প্রকর্ষ
    .
    ৬.স্বরভক্তির অপর নাম কি?
    ক.বিপ্রকর্ষ
    খ.অন্ত্যস্বরাগম
    গ.অভিশ্রুতি
    ঘ.অপিনিহিতি
    .
    ৬.ঝম+ঝম > ঝমাঝম এটি কোন ধরনের
    পরিবর্তন?
    ক. অপিনিহিতি
    খ.অসমীকরণ
    গ.বিষমীভবন
    ঘ.সমীভবন
    .
    ৭.কোন ধ্বনির সাথে যুক্ত হলে স্বরের
    লোপ হয় না?
    ক.চ বর্গীয়
    খ.ট বর্গীয়
    গ.ব্যঞ্জন ধ্বনি
    ঘ.হলন্ত ধ্বনি
    .
    ৮. পিশাচ > পিচাশ ধ্বনি পরিবর্তনে
    কীসের উদাহরণ?
    ক.ধ্বনি বিপর্যয়
    খ.সমীভবন
    গ.অপিনিহিতি
    ঘ.ব্যঞ্জনবিকৃতি
    .
    ৯. উচ্চারণের সুবিধার জন্য বা অন্য
    কারণে শব্দের আদিতে স্বরধ্বনির
    পরিবর্তন ঘটলে তাকে কী বলে?
    .
    ক.আদি স্বরাগম
    খ.বিপ্রকর্ষ
    গ. অন্ত্যস্বরলোপ
    ঘ.স্বরসংগতি
    ১০. স্কুল > ইস্কুল এটি কোন ধরনের
    পরিবর্তন?
    ক.আদি স্বরাগম
    খ.বিপ্রকর্ষ
    গ.অন্ত্যস্বরলোপ
    ঘ.স্বরসংগতি

    Continue reading "বাংলা ২য় পত্র"

মানুষ বাঁচে তার কর্মে বয়সের মধ্যে নয়।

মানুষের জীবন ক্ষনস্থায়ী |
পৃথিবীতে প্রত্যেক মানুষ জন্ম গ্রহণ করে
এবং এক পর্যায়ে তাকে মৃত্যুবরণ করতে হয় |
কিন্তু কিছু মানুষ মৃত্যুবরণ করলেও তারা সবার
মাঝে চিরঅমর হয়ে থাকে |
কর্ম মানুষকে বাঁচিয়ে
রাখে | আর কর্মের মাধ্যমে মানুষ মৃত্যুবরণ
করেও বেঁচে থেকে যায় প্রত্যেকটি মানুষের
মাঝে | আর এই বেঁচে থাকাটা সবচেয়ে
গর্ববোধের | মানুষ পৃথিবীতে ভাল কাজ
করলে তাকে সবাই মনে রাখে |
যেমনটা করেছেন আমাদের দেশের শেখ
মুজিবুর রহমান, জিয়াউর রহমান, বেগম
রোকেয়া এবং আরো অনেক ব্যক্তিবর্গ |
শেখ মুজিবুর রহমান ও জিয়াউর রহমান
মুক্তিযুদ্ধ চলাকালিন সময়ে দেশের মানুষকে
সাহসীকতা এবং বিদেশী কুটনৈতিকদের
সাথে সম্পর্ক রেখে সাহায্য করেছেন |
দেশকে শত্রু মুক্ত করেছেন | আর বেগম
রোকেয়া নারী জাগরণ আন্দোলন করে নারী
দেরকে জীবন চলার মাধ্যম শিখিয়ে
দিয়েছে | তাই আজ নারী কর্মক্ষেত্রে সফল
| তাদের এই কর্মকাণ্ডে তারা আজ মৃত্যুবরণ
করেও চির অমর হয়ে বেঁচে আছে ……………………………………………………………..